হাবিপ্রবির ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের 'ওয়েবিনার' আয়োজিত

  • 07 Apr
  • 01:16 PM

আব্দুল্লাহ আল মুবাশ্বির, হাবিপ্রবি প্রতিনিধি 07 Apr, 20

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সোসাল সাইন্স এন্ড হিউম্যানিটিজ অনুষদের অধীনে ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের উদ্দোগে "How to Stay Positive and Productive During Corona Pandemic" শীর্ষক এক ওয়েবিনার তথা ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিভাগের শিক্ষকদের উদ্যোগে আজ মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) বিকেল চারটায় আয়োজিত এই ওয়েবিনারে যোগ দেন ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষকগন এবং প্রথম ও দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। সামাজিক দুরত্বের এই সময়ে বিভাগের শিক্ষার্থীদের সার্বিক অবস্থার বিষয়ে খোঁজ খবর নেয়া, চলমান পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা এবং দক্ষতা উন্নয়নে সহায়তা এবং করোনা পরিস্থিতিতে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়।

এ বিষয়ে ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ছাত্রছাত্রীদের নিরাপত্তা এবং কল্যাণ নিয়ে শিক্ষকদের উদ্বেগ এবং সহযোগিতার মানসিকতা ভালো লেগেছে। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা বিষয়ক সমস্যা সমাধানে অনলাইন ক্লাস কার্যক্রমের সম্ভাব্যতা নিয়ে আলোচনা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। অপর দিকে একই ব্যাচের শিক্ষার্থী লিমা আক্তার জানান,' করোনা আতঙ্কে খুব ভয়ে ছিলাম। আজ বিভাগের শিক্ষক, বড় ভাই-আপুদের সাথে কথা বলে লাগছে। আমাদের সবার সচেতন হওয়া প্রয়োজন করোনা মোকাবিলায়। উচ্ছ্বসিত কন্ঠে বিভাগের শিক্ষার্থীরা আরও জানান, এবারই প্রথম অপ্রত্যাশিত ছুটিতে আমরা সবাই সবার থেকে দূরে অবস্থান করছি। এর মাঝে সবার সাথে দেখা হওয়া ও কথা বলা সত্যিই রোমাঞ্চকর। তারা আরও বলেন, দেশ এক চরম সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এসময় বিভাগের কোন দরিদ্র শিক্ষার্থীর যাতে সমস্যা না হয় সে ব্যাপারে আমরা সচেষ্ট আছি, স্যাররা আমাদের পাশে আছেন। বিভাগের শিক্ষকগণ আমাদের ব্যাপারে খুবই আন্তরিক। পড়াশোনা, দীর্ঘ ছুটি, মহামারী ভাইরাস, গুজব ও মানবিক সহায়তা সহ নানান বিষয়ে আজ ভিডিও কনফারেন্সে আলাপ হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিভাগের শিক্ষকরা বলেন, 'এই জরুরী পরিস্থিতিতে প্রত্যেকে তার নিজ জায়গা থেকে তাদের দ্বায়িত্ব পালন করা খুব জরুরী। আমাদের ছাত্রছাত্রীরা কেমন আছে? তাদের কোন সমস্যা আছে কিনা এবং এই পরিস্থিতে আমরা কিভাবে তাদের সহযোগিতা করতে পারি সেটা জানা এবং সাধ্যমত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়া আমাদের নৈতিক এবং মানবিক দায়িত্ব। এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদেরকে একাডেমিকভাবে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেয়া আমাদের পেশাগত দায়িত্ব। তাই পেশাগত এবং মানবিক দায়িত্বের জায়গা থেকেই আমরা এই ওয়েবিনারের আয়োজন করেছি। এছাড়াও ওয়েবিনারের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের করণীয় বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করাও ছিল এর অন্যতম একটি উদ্দেশ্য'।