গণরুমের শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের অহ্বান ডাকসুর!

  • 16 Mar
  • 09:05 AM

ঢাবি প্রতিনিধি 16 Mar, 20

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ১৮-২৮ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্লাস-পরীক্ষা সাময়িক স্থগিত করা হলেও আবাসিক হলগুলো বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন থাকতে ও গণরুমের শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগ করতে আহ্বান জানিয়েছেন ডাকসু।

সোমবার (১৬ মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)’র ছাত্র প্রতিনিধিরা একথা জানান।

ডাকসু’র ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, শিক্ষার্থীদের সার্বিক দিক বিবেচনা করে ক্যাম্পাস বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু শিক্ষার্থীরা যদি হল ত্যাগ না করে, তাহলে প্রশাসনের এই পদক্ষেপ ফলপ্রসু হবেনা। তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের ( বিশেষ করে গণরুমের শিক্ষার্থীদের ) হল ত্যাগ করা উচিত। তাই গণরুমের শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের অহ্বান জানাচ্ছি।

ডাকসু’র এজিএস সাদ্দাম হোসাইন বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির ভিত্তিতে ও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কথা চিন্তা করে আমরা ডাকসুর পক্ষ থেকে গতকাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছি। তার একদিন পরেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের ঘোষণা দেন। গণরুমের শিক্ষার্থীদের দ্রুত হল ত্যাগের আহ্বান জানাই। তা না হলে আক্রান্ত ব্যক্তিদের থেকে এই ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে।

ডাকসু’র সাংস্কৃতি সম্পাদক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় যতই বন্ধ দেওয়া হোক না কেন, যদি টিএসসির চায়ের দোকানগুলোর আড্ডা বন্ধ না করা যায় তাহলে টিএসসির গণজমায়েত কখনোই বন্ধ করা সম্ভব নয়৷ প্রোক্টর মহোদয়ের সাথে কথা হয়েছে। প্রোক্টর মহোদয় নিশ্চিত করেছেন যে করোনা ভাইরাসের অবাধ সম্প্রসারণ নিয়ন্ত্রণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকাকালীন সময়ে টিএসসির চায়ের দোকান গুলো বন্ধ করা হবে আগামীকাল থেকে। এই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পূর্বেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সচেতন হতে আহ্বান জানাই। এছাড়া গণরুমের শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের অনুরোধ জানাই। যে যেখানেই থাকবেন, সচেতন থাকবেন।
ডাকসু সদস্য রফিকুল ইসলাম সবুজ বলেন, যেহুতু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটি জনবহুল এলাকা, তাই কেউ করোনা ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হলে তা দ্রুত ছড়িয়ে মহামারি আকার ধারণ করতে পারে। তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে হল ত্যাগ করতে শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানাই।
ডাকসু সদস্য মাহমুদ হাসান বলেন, গণরুমে গাদাগাদি করে শিক্ষার্থীদের থাকতে হয়। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ২ থেকে ১৪ দিন এই ভাইরাসটি সুপ্ত অবস্থায় থাকতে পারে। ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির অজান্তেই এটি ছড়িয়ে পড়তে পারে অনেকের মধ্যে। তাই গণরুমের শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের আহ্বান জানাই।

এদিকে শিক্ষার্থীরাও মনে করছেন দ্রুত তাদের হল ত্যাগ করা প্রয়োজন। ইতোমধ্যে অনেক শিক্ষার্থী ক্যাম্পাস ত্যাগ করেছেন।