সেকেন্ড টাইমাররা ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে কিন্তু..

  • 08 Dec
  • 11:09 AM

ডেস্ক নিউজ 08 Dec, 20

চলতি শিক্ষাবর্ষে দেশের ১৯টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেখানে মোট তিনটি পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে একটি পরীক্ষা হবে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের জন্য, আরেকটি মানবিকের জন্য এবং অপরটি ব্যবসায় শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের জন্য। তবে বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা বিভাগ থাকবে না। এ তিনটির মধ্যেই বিভাগ পরিবর্তনেরও সুযোগ থাকবে।

এদিকে, গুচ্ছ পদ্ধতির এই পরীক্ষায় সেকেন্ড টাইমারদের ভর্তি পরীক্ষায় সুযোগ থাকলে সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাবে না বলে জানিয়েছেন ১৯টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার যুগ্ম আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান।

রবিবার (৬ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, কোন কোন বছরের শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে সেটা এখনও কনফার্ম না, এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে ২০১৯-২০ ব্যাচের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদেরও ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে কিন্তু সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি নেবে না।

জবির ভর্তি প্রক্রিয়ার উদাহরণ টেনে প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান আরও বলেন, আরও তিন বছর আগে থেকে আমরা পুরাতন ছাত্রদের (সেকেন্ড টাইমার) ভর্তি নেয় না। এবার গুচ্ছতেও নেয়া হবে না। তবে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় বেটার ছাত্র পাওয়ার আশায় কিংবা সব ছাত্র যাতে ভর্তির সুযোগ পায় সেজন্য সেকেন্ড টাইমারদের সুযোগ দেবে।

তার মতে, গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় সেকেন্ড টাইমাররা আবেদন করতে পারবে তবে ভর্তি নেবে কিনা তা সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় সিদ্ধান্ত নেবে। আগামী ১৯ তারিখ ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিরা বসে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বলে তিনি জানান।

যে ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তির সিদ্ধান্ত হয়েছে সেগুলো হলো- ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।