‘শ্রাবনে শখের ভেলা’

  • 21 July
  • 01:20 PM

আব্দুল্লাহ আল মামুন 21 July, 20

কলা গাছ কেটে নতুন পানিতে ভেলা ভাসানো গ্রামের তেলে জলে বড় হওয়া প্রত্যেকটি মানুষেরই হৃদয়ের সাথে গেথে আছে। ভেলা গ্রামীণ ঐতিহ্যের সাথে ওতোপ্রতভাবে জড়িত। যান্ত্রিক শহরে এসব গ্রামীন ঐতিহ্যকে চোখে পড়ে না। কিন্তু গ্রামে পানি আসার সাথে সাথে চোখে পড়ে কলা গাছের তৈরি ভেলা। আজকাল এদেশের মানুষ হয়তো কয়েকটি কলা গাছ জোরা লাগিয়ে বানানো ভেলার কথা ভুলেই গিয়েছে। টেলিভিশনের সামনে বসে সিনেমার রঙ্গিন পর্দায় হয়তো মাঝে মাঝে এগুলোর দেখা মেলে। কিন্তু কেউ যদি এই শ্রাবনে গ্রামে আসে তাহলে খুব সহজেই দেখে নিতে পারবে কলা গাছের তৈরি ভেলা।

আকাশে গুড়ুম গুড়ুম কালো মেঘ ডাকে, চারপাশে ঘ্যাঙরঘ্যাঙ ব্যাঙ্গ ডেকে সবাইকে জানিয়ে দেয় এই শ্রাবণে অনেক বেশি পানি আসবে, ভেলা প্রেমী দস্যি ছেলের দল আগাম বার্তা নাও। এখন দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যার পানি ঢুকেছে, নদী, নালা, বিল, ঝিল যেন তাদের যৌবন ফিরে পেয়েছে। চারদিকে আছড়ে পরছে কালো ঢেউ। সেই সাথে তাল মিলিয়ে গ্রামের ছোট ছেলেরা তৈরি করে ফেলতেছে কলা গাছ দিয়ে ভেলা। আর সেগুলো বেয়ে এপাড় থেকে ওপাড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। পুরো বিলটা যেন তাদেরই দখলে, তাদেরই রাজত্ব চলে এখন। দস্যি ছেলে আরেকবার বুঝিয়ে দিচ্ছে বিলে পানি এলে দুষ্টু ছেলেটাই বিলের রাজা।

পাল্লা দিয়ে চালাচ্ছে ওরা শখের ভেলা, ভেসে চলে যাচ্ছে স্বাধীনভাবে এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত। চারদিকে পানি, বসে থেকে কুড়ে হওয়ার চেয়ে হাত পা নাড়িয়ে চাঙ্গা হওয়াটা ওদের কাছে দোষের কিছু নয়। সারাটা দিন চলে ওদের দস্যিপনা। বিকেলে এদের ডাকাত পুলিশ খেলাটাও বেশ জমে ওঠে। ডাকাতদল পালিয়ে লুকানোর আপ্রাণ চেষ্টায় দ্বিগুণ গতিতে ভেলা ভাসিয়ে তরতর করে সামনের দিকে চলে যাবে। ওদিকে পুলিশ বাহিনীও ছেড়ে দেবার পাত্র নয়, তাড়া দিতে সা সা করে ভেলা ভাসিয়ে এগিয়ে যাবে ওদের পিছু। মাঝপথে ডাকাতদল ধরা পরলে দুপক্ষের সংঘর্ষে ওদের খেলাটা আরো জমে ওঠে। শেষ পর্যন্ত ডাকাতের ভেলা যুদ্ধে কুলিয়ে না উঠতে পেরে লাফিয়ে পানির নিচে পালিয়ে যাবে।

শখের বসেই হোক কিংবা প্রয়োজনেই হোক এই অলস সময়টাতে অনেকেই মনের খোরাক মিটিয়ে দিব্যি বানিয়ে ফেলছে এসব ভেলা। হয়তো অনেকেই তাদের বাড়িতে পানি উঠার কারণে প্রয়োজনের তাগিদেই তিন থেকে চারটে কলা গাছে কুঞ্চি গেঁথে চলনযোগ্য প্রিয় বাহনে রুপান্তরিত করে ফেলছে। বাঁশের চিকন ফালির মতোই এসব ভেলাকে ভাঁসতে দেখা যায় দূর থেকে এখন প্রত্যেকটি বিলে।