শেষ হলো জাবি'র সবচেয়ে বড় উদ্যোক্তা বিষয়ক অনলাইন ট্রেনিং

  • 25 June
  • 01:54 PM

ফরিদ আহমেদ জয়, জাবি প্রতিনিধি 25 June, 20

ইইসি-জেইউ সব্সময়ই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সৃজনশীলতার চর্চাকে উৎসাহ প্রদান সহ দক্ষ উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানের লক্ষ্যে একনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আয়োজন করা হয়েছিলো " Road to Entrepreneurship 3.0" শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার, যেখানে বরেণ্য সব প্রশিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের ব্যবসা, ব্যবস্থাপণা ও বিপণন সহ উদ্যোক্তা হওয়ার প্রাথমিক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।
২১ জুন, ২০২০ ইইসি-জেইউ এর উদ্যোগে “Road to Entrepreneurship 3.0” কর্মশালা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচি অনুষ্ঠানটির গ্রান্ড ফিনালে সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়, যা উক্ত বছরের ৭ই মে থেকে শুরু করা হয়েছিলো। এই কর্মসূচির লক্ষ্য ছিল ভবিষ্যৎ অর্থনীতির চালিকা শক্তি, নতুন উদ্যোক্তা তৈরি। উদ্যোক্তা হচ্ছে একটি দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি আর তারই পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্যোক্তার প্রবণতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে 'ইইসি-জেইউ। গত দুইবছরের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এ বছরেও 'ইইসি-জেইউ'র পক্ষ থেকে নতুন উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে "Road to Entrepreneurship 3.0" শীর্ষক একটি অনলাইন ভিত্তিক ট্রেনিং সেশনের আয়োজন করা হয় যা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম ও ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়েছিল। বিগত ট্রেনিং সেশনে শুধুমাত্র ক্লাব মেম্বাররা জয়েন করার সুযোগ লাভ করত কিন্তু এবারের ট্রেনিং সেশনটা করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনায় এনে সকলের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয় এবং প্রায় ২৮০ জনেরও অধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রণ করে এই ট্রেনিং সেশনে।প্রায় দেড় মাসব্যাপী দীর্ঘ এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচিটি সমাপ্ত হয়েছে "গ্র্যান্ড ফিনালে" এর মাধ্যমে।
প্রশিক্ষণ কর্মসূচিটির গ্র্যান্ড ফিনালের ইভেন্টটিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সংগঠনটির উপদেষ্টা, শ্রদ্ধেয় অধ্যাপক বশির আহমেদ এবং তার সাথে উপস্থিত ছিলেন আইআইটি বিভাগের শ্রদ্ধেয় অধ্যাপক ডঃ এম মেসবাহউদ্দীন সরকার, অধ্যাপক বশির আহমেদ সেখানে বলেন, নেতৃত্ব এর জায়গাটা গড়ে তুলতে হবে উদ্যোক্তা হওয়ার জন্যে। আর সবাইকে চাকরীগ্রহীতা থেকে চাকরীদাতা হয়ে উঠার উৎসাহ প্রদান করেন।“ অধ্যাপক ডঃ এম মেসবাহউদ্দীন সরকার বলেন,”নতুনদেরকে যোগ্য নেতৃত্ব দেয়ার সু্যোগ করে দিতে হবে এবং যথাসম্ভব চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের এই সময়টাকে কাজে লাগাতে হবে।“ এছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন ট্রেনিংটির ট্রেইনারগন, যারা কিনা ট্রেনিংটাকে উপভোগ্য করে তুলেছিলেন। ট্রেইনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা এবং সাবেক সভাপতি এস এম মুশফিকুল ইসলাম এবং চৌকস এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা রহমান মাশুক অর্পন।
উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সহ-সভাপতি তিলোত্তমা খান রাজিব যিনি এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন এবং তায়েবা বাশার(গবেষণা ও উন্নয়ন সম্পাদক)যিনি আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সংগঠনটির। অনলাইনভিত্তিক এই অনুষ্ঠানটির সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন সংগঠনটির কোর-সদস্য আরিফা সুলতানা রিতু। সেখানে এইবারের বেস্ট ট্রেইনি নির্বাচিত হন ‘এস এম আবু সাদাত কবি’ যিনি বর্তমানে আইন ও বিচার বিভাগে ১ম বর্ষের এবং দ্বিতীয় বেস্ট ট্রেইনি হিসেবে নির্বাচিত হন আইআইটি বিভাগের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী তাসফিয়া ইসরাত। এই পুরো কর্মশালাটির সহ-আহবায়ক হিসেবে ছিলেন মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক মুয়াম্মার শাহারিয়ার ফেমাস এবং কারিগরি ও প্রচার সহয়তায় ছিলেন- যথাক্রমে তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এইচ.এম. জুল ইকরাম নিবিড় ও প্রচার সম্পাদক আফসানা আক্তার । আরো ছিলেন সংগঠনের কোর-সদস্য সোহম সরকার, ফারিয়া হায়দার, ইফতেখারুল ইসলাম সিফাত, মাজহারুল হাসান সিয়াম, শারাফ আনজুম মিশি, তামিম ইসলাম, মেহেদি হাসান তুষার ও নাদিয়া সুলতানা।
এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন ইইসি-জেইউ এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন সভাপতি এস.এম. মুশফিকুল ইসলাম, চৌকস এর সহ প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রহমান মাশুক অর্পন ও রিচ ইনসাইট গ্লোবাল এর সহ প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মোঃ ইমদাদুল ইসলাম। ভবিষ্যত উদ্যোক্তাদের উৎসাহ প্রদান ও প্রাথমিক প্রশিক্ষণ প্রদান সহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সবসময় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্যোক্তাবান্ধব একটি পরিবেশ তৈরি করার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করে যাচ্ছে ইইসি-জেউ।

সম্প্রতি ইইসি-জেইউ এর উদ্যোগে ভবিষ্যৎ অর্থনীতির চালিকা শক্তি, নতুন উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষে "Road to Entrepreneurship 3.0" শীর্ষক তিন সপ্তাহ ব্যপী অনলাইন ভিত্তিক কর্মশালা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করে। ৭ই মে থেকে শুরু হওয়া এই কর্মশালায় মূলত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম ও ২য় বর্ষের প্রায় ২৮০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। উল্লেখ্য বর্তমান এই দূর্যোগকালীন সময়ে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ইইসি-জেউ এই কর্মশালার আয়োজন করে।

বাংলাদেশের অর্থনীতি, জীবনযাত্রার মান সহ সর্বোপরি উন্নয়নের স্বার্থে ভবিষ্যত উদ্যোক্তাদের উৎসাহ প্রদান ও প্রাথমিক প্রশিক্ষণ প্রদান সহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে ইইসি-জেউ সবসময় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্যোক্তাবান্ধব একটি পরিবেশ তৈরি করার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে আসছে। সেই ধারাবাহিকতায় বার্ষিক এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বরাবরই আয়োজন করে আসছে ইইসি-জেউ। এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন অত্র সংগঠনের সহ সভাপতি তিলোত্তমা খান রাজিব। এই বিশাল কর্মযজ্ঞের আহবায়ক হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন অত্র সংগঠনের গবেষণা ও উন্নয়ন সম্পাদক তায়েবা বাশার, সহ-আহবায়ক হিসেবে ছিলেন মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক মুয়াম্মার শাহারিয়ার ফেমাস এবং কারিগরি ও প্রচার সহয়তায় ছিলেন যথাক্রমে তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এইচ. এম. জুল ইকরাম নিবিড় ও প্রচার সম্পাদক আফসানা আক্তার। আরো আছেন সংগঠনের সাধারণ সদস্য সোহম সরকার, ফারিয়া হায়দার, ইফতেখারুল ইসলাম সিফাত, মাজহারুল হাসান সিয়াম, শারাফ আনজুম মিশি, তামিম ইসলাম, মেহেদি হাসান তুষার ও নাদিয়া সুলতানা।


এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে তাদের মূল্যবান সময় দিয়ে সহায়তা করছেন ইইসি-জেইউ এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন সভাপতি এস.এম. মুশফিকুল ইসলাম, চৌকস এর সহ প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রহমান মাশুক অর্পন ও রিচ ইনসাইট গ্লোবাল এর সহ প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মোঃ ইমদাদুল ইসলাম।


২১জুন জমকালো গ্রান্ড ফিনালের মাধ্যমে পর্দা নামল "রোড টু অন্ট্রোপ্রোনরশিপ" এর তৃতীয় সংস্করণের। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইইসি-জেইউ এর উপদেষ্টা ও সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সম্মানিত অধ্যাপক বশির আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে আয়োজনটিকে অলঙ্কৃত করেছেন ইন্সটিটিউট অফ ইনফরমেশন অ্যান্ড টেকনোলজি এর সম্মানিত পরিচালক অধ্যাপক ড. এম মেসবাহউদ্দিন সরকার। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন রোড টু অন্ট্রোপ্রোনরশিপ এর প্রশিক্ষক, ইইসি-জেইউ এর প্রাক্তন সভাপতি, সফল স্টার্টআপ চৌকস এর সহ প্রতিষ্ঠাতা এস.এম মুশফিকুল ইসলাম, প্রশিক্ষক ও চৌকসের সহ প্রতিষ্ঠাতা রহমান মাশুক অর্পণ। আরো উপস্থিত ছিলেন প্রশিক্ষণ উপদেষ্টা ও ইইসি-জেইউ এর সহ সভাপতি তিলোত্তমা খান রাজিব। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও ইইসি-জেইউ এর সদস্য আরিফা সুলতানা রিতু। সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৫০জন অংশগ্রহণকারীকে "সার্টিফিকেট অফ কমপ্লিশন" প্রদান করা হয়। একই সাথে সম্পূর্ণ আয়োজনে শ্রেষ্ঠ শিক্ষানবিশ এর পুরস্কার প্রদান করা হয় আইন ও বিচার বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী এস এম আবু কবি সাদাত কে। এছাড়াও শ্রেষ্ঠ শিক্ষানবিশ ( ইন হাউস) বিভাগে যৌথ ভাবে পুরষ্কৃত করা হয় পরিসংখ্যান বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী সোহম সরকার এবং ফাইন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী মেহনাজ ঐশী কে।