শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় গুচ্ছ পদ্ধতির সিদ্ধান্ত: জবি উপাচার্য

  • 19 Mar
  • 08:23 PM

জবি প্রতিনিধি 19 Mar, 20

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আগামী বিবিএ ও অনার্স ভর্তি পরীক্ষা গুচ্ছ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে একাডেমিক কাউন্সিল। এছাড়াও ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ পদ্ধতিতে থাকছেন। আর গুচ্ছ পদ্ধতির নেতৃত্বে যুগ্ম আহ্বায়কের দায়িত্বে থাকছেন জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর সূত্রে এতথ্য নিশ্চিত করা হয়। জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর সূত্রে জানা যায়, ১৯ মার্চ অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১ তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এবিষয়টি জানতে চাইলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, আমরা গোটা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যে ২১ টি বিশ^বিদ্যালয় এ বিষয়ে সম্মত হয়েছে এদের আলাদা করে পরিক্ষা হলে কমপক্ষে ৬৩ টি পরিক্ষা হতো কিন্তু আমরা তা ৩ টিতে শেষ করতে পারব। এতে শিক্ষার্থীরা লাভবান হবেন। তিনি আরো বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলে কেউ কেউ প্রশ্ন করেছেন শিক্ষার্থীরা তো কেউ এ বিষয়ে কথা তুলেননি তাহলে কেন গুচ্ছ পদ্ধতি? এমন প্রশ্নের জবাবে একাডেমিক কাউন্সিলের অধিকাংশ সদস্যরা মনে করেন, যদি শিক্ষার্থীরাই ঠিক করেন কিভাবে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবেন তো বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষের কোন দরকার ছিল না। এছাড়া এই গুচ্ছ পরিক্ষা পদ্ধতিতে আমি সহ শাবির উপাচার্য নেতৃত্ব দিচ্ছি। এছাড়া ভর্তি কমিটির ১ম সভা জগন্নাথ বিশ্বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। তাছাড়া মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ বিভিন্ন সময়ে গুচ্ছ বা সমন্বিত ভর্তি পরিক্ষা নেয়ার কথা বলেছেন।

উল্লেখ্য, এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি ইউজিসির সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় সিদ্ধান্ত জানান। ৫ টি বিশ্ববিদ্যালয় বাদে বাকিরা গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় সম্মতি জানান। তবে জবি শিক্ষক সমিতি তাদের সাধারণ সভা থেকে গুচ্ছ পদ্ধতিতে না যাওয়ার পক্ষে মত দিয়েছিলেন।