রাজশাহীর বাগমারায় তরুছায়া সংগঠনের পক্ষ হতে ১৫০ টি পরিবারের মধ্যে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ

  • 13 May
  • 09:26 AM

নিজস্ব প্রতিনিধি 13 May, 21

রাজশাহী জেলার বাগমারা থানার শিক্ষার প্রাণকেন্দ্র মচমইল এর সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা একতাবদ্ধ হয়ে ২০২০ সালে "তরুছায়া" নামক সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ছাত্র সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে যার মূলমন্ত্র "ব্যস্ততাই সুস্থতা"।
সংগঠনের প্রধান উদ্দেশ্য এলাকার আশেপাশের অবহেলিত সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের সাহায্য করা এবং মচমইল এলাকার সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মেধাবী শিক্ষার্থী যারা টাকার অভাবে পড়াশোনা করতে পারছে না, শিক্ষা উপকরণ হতে বঞ্চিত,দরিদ্রতার কারণে কোচিং এ অবহেলিত তাদের সার্বিকভাবে সাহায্য করা এবং এলাকায় দূর্যোগময় পরিস্থিতিতে বিভিন্ন সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহন।২০২০ সালে মচমইল বাজারে "ধর্ষণবিরোধী মানববন্ধন " করে সংগঠনটি আত্মপ্রকাশ করে।

এরই ধারাবাহিকতায় সংগঠনের প্রথম প্রোগ্রাম হিসেবে মচমইল এবং আশেপাশের বিভিন্ন গ্রামের ১৫০ টি পরিবারের মধ্যে ঈদ উপহার (বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী) প্রদান করা হয়েছে। তার পাশাপাশি কয়েকটি দরিদ্র শিক্ষার্থীকে খাদ্য সামগ্রীর পাশাপাশি বস্ত্র কিনে দেওয়া হয়েছে। বুধবার প্রোগ্রামটি অনুষ্ঠিত হয় মচমইল কলেজে।

উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির‌‌ সভাপতি সীমা আক্তার এবং সঞ্চালনায় ছিলেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রিপন। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক জয়নুল আবেদিন জয় এবং যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নির্জন।
‌এ প্রসঙ্গে সংগঠনটির সভাপতি সীমা আক্তার জানান, অনেকদিন থেকেই আমার ইচ্ছে ছিলো মচমইলে একটি সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রতিষ্ঠা করা যার মূল উদ্দেশ্য হবে এলাকার হতদরিদ্র মানুষদের সাহায্য সহযোগিতা করা। আলহামদুলিল্লাহ আমরা পেরেছি।

‌এছাড়াও সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রিপন জানান, প্রথম বছরেই ১৫০ টি পরিবারের মুখে হাসি ফুটাতে পেরে আমরা আনন্দিত। আশা করি ভবিষ্যতে এ সংখ্যা আরও অনেক বেশি বৃদ্ধি পাবে।সেই সাথে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সংগঠনের সকল স্বেচ্ছাসেবীদের যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে প্রোগ্রামটি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

মচমইল এবং আশেপাশের দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সংগঠনটি তাদের তিনজন সদস্যের মোবাইল নম্বর দিয়েছে
যাতে করে শিক্ষার্থীরা কল করে তাদের তাদের প্রয়োজনের কথা সংগঠনকে জানাতে পারে আর সেটা যথেষ্ট গোপন থাকবে।