বেরোবিতে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারনা: আটক ৩

  • 25 June
  • 09:50 AM

মাহমুদ জয়, বেরোবি প্রতিনিধি 25 June, 20

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে আউট সোর্সিং পদ্ধতিতে জনবল নিয়োগের ভুয়া কার্যাদেশ বানিয়ে মালি ও ক্লিনার পদে চাকরি দেয়ার অভিযোগে প্রতারক চক্রের ৩ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) দুপুরে ভুয়া নিয়োগপত্র, ফাকা চেকসহ ক্যাম্পাস সংলগ্ন পার্কের মোড় থেকে তাদের আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুহিব্বুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আটককৃতরা হল মিঠাপুকুরের চেংমারী এলাকার মৃত মোহাম্মদ আলীর পুত্র ওসমান গনি (৫২), দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার পশ্চিম গৌরীপাড়া এলাকার মোজাম্মেল হকের পুত্র তানভির ওরফে রিজভী (২৬) এবং একই এলাকার মৃত ওসমান মিয়ার পুত্র জাহিদুল ইসলাম (৪৫)।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, ৪ মাস আগে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় আউটসোর্সিং নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। পরবর্তীতে করোনাজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে ২৩ মার্চ, ২০২০ তারিখে দরপত্র বিজ্ঞপ্তিটি স্থগিত করে এবং স্থগিতকরণের বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট ও জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশ করে। কিন্ত ১৩ মে ২০২০ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর হয় যে- একটি প্রতারক চক্র ভুয়া কার্যাদেশ প্রস্তুত করে ‘নাছের ইন্টারন্যাশনাল’ নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে আউট সোর্সিং পদ্ধতিতে জনবল সরবারহের কার্যাদেশ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রচার করে সাধারণ জনগণের নিকট থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার পাঁয়তারা করছে। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ে।

উক্ত ভুয়া কার্যাদেশের বিষয়ে তদন্তের মাধ্যমে জালিয়াতি চক্রটিকে সনাক্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গত ১৪ মে, ২০২০ তারিখে রংপুর মেট্রোপলিটন-এর তাজহাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (তাজহাট থানার সাধারণ ডায়েরি নং-৫৬১, তারিখ-১৪/০৫/২০২০) করে বিশ^দ্যিালয় প্রশাসন।

আরও জানা যায়, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের মালি পদে এক যুবক প্রতারক চক্রের কাছে ৩ লাখ ৮০ হাজার টাকা ঠিক করে। চাকরি প্রত্যাশি ওই যুবকের এ বিষয়ে সন্দেহ হলে গোপনে পুলিশ কে জানান তিনি। প্রতারক চক্রকে ধরতে ফাঁদ পাতে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মুহিব্বুল ইসলাম মুন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতারক চক্র ওই যুবকের নিকট টাকা নিতে পার্কের মোড়ে এলে পুলিশ তাদের হাতেনাতে আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ৩টি জাল নিয়োগপত্র, ৪টি ফাকা চেকের পাতা, ৪টি ফোন, ৪টি ভোটার আইডি কার্ড উদ্ধার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ মুহিবুল ইসলাম জানান, প্রতারক চক্র বিভিন্নজনকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিতো। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার বাদি হয়ে একটি মামলা করেছেন।