বাউয়েটে অনুষ্ঠিত হলো হাল্ট প্রাইজ অন ক্যাম্পাস প্রোগ্রামের গ্র্যান্ড ফিনালে

  • 17 Nov
  • 10:09 AM

সাফাত রহমান, বাউয়েট প্রতিনিধি 17 Nov, 20

গত ০৬-১১-২০২০ তারিখে বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজিতে (বাউয়েট) অনুষ্ঠিত হয়ে গেল হাল্ট প্রাইজ অন ক্যাম্পাস প্রোগ্রামের গ্র্যান্ড ফিনালে।

দ্য হাল্ট প্রাইজ বিশ্বের সবচেয়ে বড় শিক্ষার্থী উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম যেটা ১৫০ এর বেশি দেশের ৩০০০ এর বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। যার আয়োজক জাতিসংঘ, বিল ক্লিনটন ফাউন্ডেশন ও দ্যা হাল্ট বিজনেস স্কুল। নোবেল বিজয়ী ড. মোহাম্মদ ইউনুস হাল্ট প্রাইজকে "শিক্ষার্থীদের নোবেল পুরস্কার" বলে অভিহিত করেন। প্রতিবছর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের আহ্বানে পৃথিবীর নানা প্রান্তের শিক্ষার্থী একটি নির্দিষ্ট সমস্যার সমাধান করতে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই প্রতিযোগিতায়। প্রতিযোগিতায় প্রতিযোগীদের পেরোতে হয় চারটি পর্ব। অন ক্যাম্পাস প্রোগ্রাম, রিজিওনাল প্রোগ্রাম, এক্সেলেরেটর প্রোগ্রাম ও গ্লোবাল ফাইনাল। প্রতিবছর খাদ্য, পানির সুবিধা, শক্তি, চিকিৎসার মতো সামাজিক বিষয়গুলোর উপর ভিত্তি করে আয়োজন করা হয় হাল্ট প্রাইজ প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতায় প্রতিটি দলকে সামাজিক সমস্যা সমাধানের জন্য একটি করে চ্যালেঞ্জের ওপর আইডিয়া জমা দিতে হয়। পরবর্তীতে বিশ্বব্যাপী একযোগে এই আইডিয়া প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় লাখ লাখ টিম এবং বিজয়ী দল অংশগ্রহণ করে রিজিওনাল সামিট ও এক্সেলারেশন পর্বে।

এই বছরের হাল্ট প্রাইজ চ্যালেঞ্জ হল ফুড ফর গুড। খাদ্যকে উন্নয়নের বাহন হিসেবে ধরে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার ৭ টি বিষয়কে সামনে রেখে ২০৩০ সালের মধ্যে এক কোটিরও বেশি মানুষকে ভালোভাবে প্রভাবিত করতে পারে এমন চিন্তা-ভাবনা থেকেই এ চ্যালেঞ্জটির বিষয়বস্তু নির্ধারণ করা হয়েছে।

এবছরে হাল্ট প্রাইজ বাউয়েট অন-ক্যাম্পাস প্রোগ্রাম সফল করার উদ্দেশ্য কার্যকরী কমিটির পাশাপাশি সার্বিক তত্ত্বাবধানের জন্যে গঠিত উপদেষ্টা প্যানেলে ছিলেন কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ গোলাম সারোয়ার ভূঁইয়া, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের প্রভাষক মোঃ সাব্বির এজাজ ও মোঃ মেহেদী হাসান।
এছাড়াও এবছর হাল্ট প্রাইজ বাউয়েটের ক্যাম্পাস ডিরেক্টর হিসেবে সামরান রহমান এবং ডেপুটি ক্যাম্পাস ডিরেক্টর হিসেবে হিমেল বিশ্বাস দায়িত্ব পালন করেন।

গত ৬-১১-২০২০ তারিখে অনুষ্ঠিত অন-ক্যাম্পাস প্রোগ্রামটিতে ২১ টি দল নিজেদের আইডিয়া তুলে ধরে।
বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মির্জা এ.এফ.এম. রশিদুল হাসান, গবেষক ও প্রকৌশলী আজমাইন ইয়াক্বিন সৃজন, উদ্যোক্তা এবং ল্যাব-এআরের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও চিফ অপারেটিং অফিসার প্রিন্স রায় এবং শীর্ষস্থানীয় সাইবার সিকিউরিটি স্টার্টআপ পেন্টেস্টার স্পেসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও চিফ অপারেটিং অফিসার ইব্রাহিম খলিল।
এরই ধারাবাহিকতায় ১৪-১১-২০২০ সমাপনী অনুষ্ঠানে ফলাফল ঘোষণার মাধ্যমে পর্দা নামে হাল্ট প্রাইজ অন ক্যাম্পাস প্রোগ্রামের গ্র্যান্ড ফিনালের।
সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় ভিসি মহোদয় ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্রফেসর এম. মুস্তাফা কামাল এবং মাননীয় রেজিস্ট্রার মহোদয় লেফটেন্যান্ট কর্ণেল শেখ শামীম হুসাইন। এছাড়াও সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ডীন অফ ফ্যাকাল্টিজ, বিভাগীয় প্রধানগণ, উপদেষ্টাগণ, বিচারকমণ্ডলী এবং কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দ।

প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় ‘এরাইভাল’, এরপরে যথাক্রমে ‘দ্যা রেভ্যুলুশন স্টার্টারস' এবং ‘পট টু প্লেট’ ১ম রানার-আপ এবং ২য় রানার-আপ স্থান অর্জন করে।
অন-ক্যাম্পাস রাউন্ডের বিজয়ী দল আঞ্চলিক সম্মেলনে অংশ নেবে। এরপরে, তারা হাল্ট প্রাইজের ফাইনাল প্রোগ্রামে সরাসরি প্রবেশ করবে। আগামী বছরের সেপ্টেম্বরে “ফুড ফর গুড” চ্যালেঞ্জের উপর ভিত্তি করে জাতিসংঘের সদর দফতরে অনুষ্ঠিত হবে গ্লোবাল ফাইনাল, যেখানে বিজয়ী দলকে তাদের ব্যবসায়ের পরিধি বিস্তার করার জন্য পুরষ্কার হিসেবে দেওয়া হবে ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।