বাংলা সংস্কৃতির ধারক-বাহক ‘বাঙ্গালা’ ফাউন্ডেশন

  • 11 May
  • 04:30 PM

জাফর আহমেদ শিমুল, বিশেষ প্রতিবেদক 11 May, 21

বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দেশের এক ঝাঁক প্রতিশ্রুতিবদ্ধ তরুণ-তরুণী ও উঠতি কিছু সংস্কৃতিকর্মীর নিঃস্বার্থ প্রয়াসে ২০১৯-সালে যাত্রা শুরু করে তিল তিল করে গড়ে ওঠা 'বাংলা কমিউনিটি ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশন'
('বাঙ্গালা' ফাউন্ডেশন- বিসিডিএফ) ফাউন্ডেশন আজ বাংলাদেশীয় সংস্কৃতিকে বুকে লালন করা মানুষের আস্থার জায়গা দখল করে নিয়েছে।

একটি শিশু কবে আর কিভাবে হাঁটি হাঁটি পা পা করে হাঁটতে ও চলতে - ফিরতে শেখে তা আসলে কেউ নির্দিষ্ট করে বলতে পারে না। শুধুমাত্র পরিবারের মানুষগুলো তাকে সাহায্য ও উৎসাহ প্রদান করে। তেমনি একজন স্বেচ্ছাসেবী ও নিঃস্বার্থভাবে সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে কথা যাওয়া মানুষের কথা বলবো যিনি এমন একটা পরিবারে জন্মেছেন যেখানে দেশপ্রেম ও বাংলা সাহিত্য-সংস্কৃতি কাব্য চর্চার কোন অভাব ছিলো না;ছিলো না কোনো বাঁধা।
তিনি বাংলা ভাষা সাহিত্যের অন্যতম কবি 'জাহাঙ্গীরুল আলম' এর এক মাত্র পুত্র শাহাদ শরীফ;যিনি তিলতিল করে গড়ে তুলেছেন দেশের অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন 'বাঙ্গালা ফাউন্ডেশন'।

বাঙালি সংস্কৃতির যেসব উপাদান আজ বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে কিংবা বিলুপ্তির পথে সেগুলোকে যতটা পারা যায় সংগ্রহ ও সংরক্ষণের মাধ্যমে তার চর্চা চালিয়ে যাওয়াই ‘বাঙ্গালা'র মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। এই বাঙ্গালা'র সত্বাধিকারী সাহাদ শরীফ। তাঁর বাবা (প্রয়াত কবি জাহাঙ্গীরুল ইসলাম) ছিলেন একজন বাংলদেশের অন্যতম সেরা কবি, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব। তার চাচা বাংলা একাডেমীর তালিকাভুক্ত প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য সমালোচক (জামিরুল ইসলাম শরীফ) যিনি বর্তমানে খুবই অসুস্থ, তবুও তিনি সর্বক্ষণ বাংলা সাহিত্য-সংস্কৃতি নিয়ে বিশেষ গবেষণায় ব্যস্ত থাকেন। কথায় বলে বাপ দাদার রক্ত পরবর্তী প্রজন্মে প্রবাহিত হয়। তাই একথা নিঃসন্দেহে বলা যায়, বাবা-চাচাদের অস্থি-মজ্জায় থাকা সংস্কৃতি চর্চার স্পৃহা থেকেই শাহাদ শরীফের এমন উদ্যোগ। সেই অনুপ্রেরণা থেকে ২০১৯ সালে অনলাইনের মাধ্যমে প্রকাশ ঘটে ‘বাঙ্গালা'র।

‘বাঙ্গালা' বাংলাদেশের এমন একটি সংস্কৃতি চর্চা কেন্দ্র যেখানে বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিভিন্ন অনুষঙ্গ নিয়ে চর্চা করার একটি স্থান যার কার্যক্রম ফেসবুক পেজ এর মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে। বাংলাদেশ, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরা সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বাংলা ভাষাভাষী বা বাঙালীদের সাহিত্য-সংস্কৃতিমূলক চিন্তা চেতনার প্রকাশ ও ভাববিনিময়ের মাধ্যমে বাঙালীয়ানার সমৃদ্ধি ঘটানোই এই পেজ এর মূল উদ্দ্যেশ্য ও লক্ষ্য।

সম্পূর্ণ অলাভজনক ও স্বেচ্ছাসেবামূলক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে ‘বাঙ্গালা' তার কার্যক্রম চালিয়ে থাকে। বর্তমান বিশ্বের উন্নত প্রযুক্তির যুগে খুব সহজেই একে অপরের সাথে যোগাযোগ ও মেলবন্ধন তৈরীর সুযোগ গ্রহণ করে ‘বাঙ্গালা' বাংলা সংস্কৃতির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির প্রচেষ্টা নিরলসভাবে চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর।

'বাঙ্গালা' নামের এই সৃষ্টিশীল ও অলাভজনক,স্বেচ্ছাসেবামূলক সংগঠন সম্পর্কে বলতে গিয়ে এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জনাব শাহাদ শরীফ বলেন, ' বাঙ্গালা আমাদের একটি প্রাণের সংগঠন। আমি বাংলা ভাষার অন্যতম কবি, সাহিত্যিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে গর্বিত তাই বাংলা ভাষা-সাহিত্য, এবং বাংলা সংস্কৃতি সংস্লিষ্ট প্রতিটি বিষয়ই আমার কাছে পরম আরাধ্য। আমার বাবা ছিলেন কাব্য ও সাহিত্য অন্তঃপ্রাণ একজন মানুষ।যতদিন বেঁচে ছিলেন সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করে গিয়েছেন কি করে এর উৎকর্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করা যায়। একজন কবি-সাহিত্যিক ও মানবদরদী মানুষের সন্তান হিসেবে বাঙালী সংস্কৃতির ঐতিহ্য ও সম্মান তুলে ধরতে ও বাংলা ভাষাভাষী অবহেলিত ও অযত্নে বেড়ে ওঠা মেধাবী মানুষকে সব শ্রেণীর বাঙালীদের নিকট পৌঁছে দিতে আমৃত্যু নিরলস পরিশ্রম করে যাবো।'