বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে ববি শিক্ষার্থীর ছোটন্দ্রনাথ চক্রবর্তী'র 'অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি'

  • 11 Mar
  • 09:48 PM

ববি প্রতিনিধি 11 Mar, 22

'ছোটন্দ্রনাথ চক্রবর্তী বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। মানুষের সুখ এবং দুঃখের কথা শ্রবণের অসম্ভব ক্ষমতা রয়েছে। শখ- রাস্তার পাশে বসে মানুষ দেখা এবং মানুষের মনস্তত্ত্বকে নানাভাবে আবিষ্কার করা। ছাতিমগাছ এবং নদীর সঙ্গে খুব ভাব। বরিশাল শহরে তার একান্ত ব্যক্তিগত কয়েকজন ল্যাম্পপোস্ট রয়েছেন, যারা ভিন্ন ভিন্ন নামে পরিচিত। ভালোবাসেন মুগ্ধ হতে এবং মুগ্ধ করতে।' বলছিলাম অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত কবি ছোটন্দ্রনাথ চক্রবর্তী'র কাব্যগ্রন্থ 'অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি' বইয়ের ফ্ল্যাপে কবির পরিচয় অংশের কথা।

‘অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি’ বই সম্পর্কে কবি বলেন, 'অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি মূলত সহজপ্রেমের বিষদ বয়ান। এই বইয়ের কবিতাগুলো সেই ভাষায়, সেইসব শব্দেই প্রেমকে ব্যাখ্যা করেছে, যে ভাষায়, যে শব্দে এখনকার ছেলেমেয়েরা প্রেম করেন। এই বইটাতে প্রেম নিয়ে কোনো অভিনয় নেই, কোনো অনর্থক জটিল ভঙ্গির প্রকাশও নেই। তাই এটা সহজপ্রেমের মহাকাব্য।

সোস্যাল মিডিয়ায় কী-বোর্ডে বসে পরিবর্তন নিয়ে আসা অতি বিপ্লবী কিংবা অতি প্রেমিকদের বই এটা নয়। এটা সহজ মানুষদের বই, এটা সহজ প্রেমীদের বই।'

চারটি অধ্যায়ে ৪৩টি কবিতা নিয়ে সাজানো বইটি প্রকাশ করেছে সংবেদ প্রকাশন। বইটির প্রচ্ছদ এঁকেছেন তামিমা হোসেন তমা। বইটি পাওয়া যাচ্ছে সংবেদের ৩২৪-৩২৫ নং স্টলে।

‘অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি ’ বই সম্পর্কে লেখক আরো বলেন, ‘অস্থিতিশীল রাজনৈতিক এই সময়ে, দ্রব্যমূল্যের আকাশচুম্বিতায় দ্রোহই কবিতার অন্যতম বিষয় হয়ে উঠেছে। আমি রাজনৈতিক উপমায় প্রেমকে ব্যাখ্যা কিংবা প্রেমের কবিতা দিয়ে পৃথিবীর বেদনাকে প্রকাশ করতে চেয়েছি। এতো ছোট্ট একটা জীবন মানুষের! অথচ যৌবনের সোনার সময়টা আমাদের চাকরি খুজে, কিংবা বিদ্রোহ করে কাটাতে হয়! অথচ আমরা চেয়েছিলাম নদীর মতো একজন প্রেমিকা যার নামও হবে সুগন্ধা।

অদ্ভুত মৃত্যু নিয়ে বসে আছি ছোটন্দ্রনাথ চক্রবর্তী'র প্রথম কাব্যগ্রন্থ। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের সময়ে দীর্ঘদিন তিনি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বরিশাল শহর কেন্দ্রিক বিভিন্ন সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক সংগঠনের সংগঠক হিসেবে যুক্ত ছিলেন। বাগেরহাটের সাদামাটা গ্রামে জন্ম নেওয়া ছোটন্দ্রনাথ চক্রবর্তী বরিশালের প্রতি অদ্ভুত মুগ্ধতা নিয়ে বলেন- বরিশাল আমার শহর! বরিশাল আমার!