নোবিপ্রবিতে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন

  • 28 Sept
  • 06:15 PM

এস আহমেদ ফাহিম, নোবিপ্রবি প্রতিনিধি 28 Sept, 21

নানা আয়োজনে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মদিন উদযাপন করা হয়েছে।

আজ(২৮ সেপ্টেম্বর) এ উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচির আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।কর্মসূচির মধ্যে ছিল বেলুন উত্তোলন, আনন্দ র‍্যালি,
বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরী ভবনে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন, বৃক্ষরোপণ, অডিটোরিয়ামে ডকুমেন্টারী প্রদর্শন,আলোচনা অনুষ্ঠান এবং কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ ও দোয়া।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে দিনব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড.মোহাম্মদ দিদার উল আলম।
পরবর্তীতে আনন্দ র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়।র‍্যালিটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

র‍্যালি শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি ভবনে বঙ্গবন্ধু কর্ণারের উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড.মোহাম্মদ দিদার উল আলম। পরবর্তীতে লাইব্রেরি ভবনের সামনে বৃক্ষরোপণ করেন উপাচার্য।

পরবর্তীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস অডিটোরিয়ামে “বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা: বাঙালির দেশরত্ন, বিশ্ববাসীর ক্রাউন জুয়েল” প্রতিপাদ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভার শুরুতে জাতীয় সংঙ্গীত পরিবেশন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্মের ওপর নির্মিত একটি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত, গীতা পাঠ, বাইবেল ও ত্রিপিটক পাঠ করা হয়।

নোবিপ্রবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল বাকীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নোবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: দিদার-উল-আলম এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফারুক উদ্দিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, “এতো অল্প সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা বাংলাদেশের যে উন্নতি সাধন করেছেন, তা বিশ্ববাসীর সামনে একটি রোল মডেল হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। দারিদ্র বিমোচন সহ এনার্জি সেক্টর এবং যোগাযোগ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অভুতপূর্ব উন্নতি সাধন করেছে। বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক সাফল্যের কারণে আজ জাতিসংঘ তাঁকে সম্মান জানাচ্ছে। এসডিজি অগ্রগতি পুরষ্কারে ভূষিত হওয়া এই সাফল্যেরই ধারাবাহিকতা।

উপাচার্য আরো বলেন, যোগাযোগ ক্ষেত্রে প্রতিনিয়তই নতুন নতুন অর্জন সাধিত হচ্ছে। দারিদ্র বিমোচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা অনন্য। আশ্রয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে পিছিয়ে থাকা দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে তিনি মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করে চলেছেন, যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।বক্তব্যে উপাচার্য প্রধানমন্ত্রীর সুসাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

এসময় আরো ছিলেন রেজিস্ট্রার ড.মো.আবুল হোসেন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, সাধারণ সম্পাদক মাজনুর রহমান, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দীন পলাশ, বিভিন্ন অনুষদের ডিন,ইন্সটিটিউটের পরিচালক, হলের প্রভোস্ট,শিক্ষক,শিক্ষার্থী,
কর্মকর্তাবৃন্দ।

এছাড়াও বাদ যোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।