তরুণীকে হেনস্তার প্রতিবাদে প্রকাশ্যে ধূমপান করলেন একদল তরুণ-তরুণী

  • 12 Dec
  • 11:06 AM

ডেস্ক নিউজ 12 Dec, 20

রাজশাহীতে প্রকাশ্যে ধূমপান করায় এক তরুণীকে হেনস্তা করার প্রতিবাদে একই স্থানে প্রকাশ্যে ধূমপান করলেন একদল তরুণ-তরুণী।

শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজশাহী মহানগরের সিঅ্যান্ডবি মোড় এলাকায় তারা অবস্থান নিয়ে ধূমপান করেন।
ব্যতিক্রমী এই প্রতিবাদে আয়েশা অনু, পারিজাত, মাইশা, মরিয়ম, সুস্মিতা মিরা, আব্দুল্লাহসহ ১০-১১ জন তরুণ-তরুণী অংশ নেন। তারা বলেন, ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। কিন্তু একজন মেয়ে ধূমপান করছিল বলে তাকে হেনস্তা করা হবে কেন? একজন যুবক যদি ধূমপান করতে পারে, তাহলে মেয়ে ধূমপান করলে দোষ কোথায়? আমরা প্রকাশ্যে ধূমপান করে ওই নারীকে হেনস্তারই প্রতিবাদ জানাচ্ছি, কাউকে ধূমপান করতে উৎসাহিত করার উদ্দেশ্যে নয়।
প্রতিবাদে অংশ নেওয়া সুস্মিতা মিরা বলেন, আমরা কয়েকজন মিলে সেখানে গান-বাজনা করেছি। আমাদের মধ্যে যারা ধূমপায়ী তারা সেখানে ধূমপান করেছে। ধূমপান আমাদের প্রতিবাদের একটি অংশ। প্রকাশ্যে ধূমপান করায় এর আগে একজন নারীকে হেনস্তার শিকার হতে হয়েছে। ধূমপান করা ঠিক নয়। পুরুষরা প্রকাশ্যে ধূমপান করছে কিন্তু নারীদের বাধা দেওয়া হচ্ছে। আমরা এমন দ্বৈত আচরণের প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তবে এ সময় পথচারীরা সেখানে প্রকাশ্যে ধূমপানের প্রতিবাদ জানালে বাকবিতণ্ডা হয়। পথচারীদের কয়েকজন প্রতিবাদকারী তরুণ-তরুণীদের বলেন, বাংলাদেশ আইনে ধূমপান করা অপরাধ। নারী-পুরুষ সবার জন্যই তো আইন সমান। জনসম্মুখে ধূমপান করা ঠিক নয়। এভাবে কোনো প্রতিবাদ হতে পারে না। আপনারা এলাকার পরিবেশ নষ্ট করছেন।
গত মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজশাহী মহানগরের সিঅ্যান্ডবি মোড় এলাকায় এক তরুণী প্রকাশ্যে ধূমপান করে হেনস্তার শিকার হন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়।
ভিডিওতে দেখা যায়, তরুণীকে ধূমপান করতে দেখে স্থানীয় শহীদ হোসেন বারেক নামের এক ব্যক্তি সিগারেট ফেলে দিয়ে সেখান থেকে চলে যেতে বলেন। পরে স্থানীয়রাও তাদের ধমকাতে শুরু করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্ক শুরু হয়ে যায়। মেয়েটি প্রতিবাদ করলে তাকে গলা নামিয়ে কথা বলতে বলা হয়। তার পরিচয় জানতে চান। উপস্থিত সবাই ওই তরুণীকে সেই স্থান ত্যাগ করার জন্য চাপ দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে তরুণী সিগারেটের আগুন নিভিয়ে সেখান থেকে উঠে যেতে বাধ্য হন।
সূত্রঃ প্রথম আলো