ডেঙ্গু জ্বরে জবি শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যু

  • 09 Sept
  • 02:47 PM

ফারজানা ইয়াসমিন, জবি প্রতিনিধি 09 Sept, 21

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আল-আমিন লেবু নামের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভোরে সে মৃত্যুবরণ করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. মোস্তফা কামাল।

মিরপুরে নিজ মেসে তিনি মারা যান। তার গ্রামের বাড়ি বগুড়া জেলার নন্দীগ্রাম থানায়।

শিক্ষার্থীর সহপাঠী সূত্রে জানা যায়, কয়েকদিন ধরেই সে অসুস্থ ছিলো। গতকাল ফেসবুকে একটা পোস্টও করেছে সে। প্রচন্ড (১০৪) জ্বর, ঠান্ডা, কাশি এসবে সে খুব অসুস্থ। প্রথমে বাসাতেই তার স্বাভাবিক চিকিৎসা হচ্ছিল। কিন্তু গতকাল ভোরে অবস্থা খুবই খারাপ হওয়ায় হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। পরে পরীক্ষা করে জানা যায় যে, সে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ছিলো।

মৃত্যুর খবর শোনে শোকাহত হয়ে বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. পারভীন আক্তার জেমি বলেন, খবরটি শুনে আমি খুবই মর্মাহত। আমার ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থী হারানো মানে আমার কাছে নিজ সন্তান হারানোর সমতুল্য। দোয়া করি আল্লাহ যেন তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন৷

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা মৃত্যুর খবরটি শুনেছি। সহকারী প্রক্টর স্যার ঐখানে গিয়েছেন। লাশের গোসলের কাজ শেষ করে বগুড়ায় তার গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হচ্ছে। গ্রামের বাড়িতে লাশ নিয়ে তার সহপাঠী আমাদের শিক্ষার্থীরা যাবে।

আল আমিন লেবুর অকাল মৃত্যুতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও শোক প্রকাশ করেছেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ ও তাঁর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। শোকবার্তায়
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছে বলে শোকবার্তায় জানানো হয়।

তার অকাল মৃত্যুতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷ সকলেই তার আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছেন।

উল্লেখ্য যে, এর আগে ১১ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট (আইআর) এর শিক্ষার্থী রাহাত আরা মিমি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।