জমি নিয়ে বিরোধে ডুয়েট শিক্ষার্থীর পিতাকে হত্যা

  • 10 Apr
  • 08:23 AM

ডুয়েট প্রতিনিধি 10 Apr, 21

ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(ডুয়েট) এর সিএসই বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র মোঃ কায়েসুর রহমানের পিতা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ কে তার ফুফু ও তাদের ছেলেরা পরিকল্পিতভাবে অমানুষিক নির্যাতন করে হত্যা করেছে।
গত ৪ এপ্রিল আনুমানিক রাত ১০ টায় হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।
নিহত ব্যক্তির ছয় বোন আছেন। ৪৫ বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পর তিনিই সংসারের হাল ধরেন । এরপর থেকে তার সমস্ত বোন ও ভাইদের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন। তাদের সবাইকে মানুষ করে বিয়ের কাজও একাই করেছেন আর ভাইকে অনেক কষ্টে ৩ বার বিদেশ পাঠিয়েছেন। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবৎ তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে ঝামেলা চলে আসছিলো। বোন এবং ভায়েরা তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি পাওয়ার পরও নিহতের সম্পত্তির ওপর দখল নেওয়া শুরু করে। এসব কাজ সহজ হওয়ার জন্য তারা দীর্ঘদিন যাবৎ নিহত ব্যক্তির ফ্যামিলির সবাইকে ব্ল্যাক ম্যাজিকের মাধ্যমে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে রাখে যার ফলে ফ্যামিলির কারো হিতাহিত জ্ঞান ছিলনা।

কিছুদিন আগেও কক্সবাজার শহরে একটা দোকান জোরপূর্বক দখল করে নেয় বোনেরা। সেটা করেও তারা থেমে থাকেননি। বাড়ির পাশে একটি জায়গা নিয়েও অনেকদিন ধরে ঝামেলা করে যাচ্ছিলো।

নিহত মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ কদিন আগে ওই জায়গায় একটা ঘর (মুরগির খাদ্য ঘর) নির্মাণ করেছিল কিন্তু গত শুক্রবার দুপুরে সেটাও ভেঙ্গে দেয়। এরপর থেকে ওই জায়গায় টহল স্বরূপ তার বোন ও তাদের সন্তান এবং মেয়েদের জামাই সহকারে অবস্থান নেওয়া শুরু করে। রবিবার সারাদিন ওরা জায়গায় অবস্থান নেয় আর রাতের বেলায় ডুয়েট শিক্ষার্থী কায়েস সহ দুই ভাই ও পিতা সেখানে গেলে তাদেরকে অতর্কিত অবস্থায় হামলা করে। তারা ছুরি, দা, লোহার রড়, হ্যামার ও গাছের ডাল দিয়ে অমানুষিকভাবে মারধর করে এমনকি বোনের কাছে প্রাণভিক্ষা করেও রেহাই পাননি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ। ঘটনার পর মোহাম্মদ আব্দুল্লাহকে মানুষজন কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।