পথশিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম জেলায় বিশ্ব পথশিশু দিবস পালন

  • 02 Oct
  • 10:52 PM

তানজিম মাহমুদ হেলাল 02 Oct, 20

দেশের পথশিশুদের সুরক্ষা ও তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রতিবছর আমাদের দেশে পালিত হয় এই দিবস। আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। মায়ের কোল হলো তাদের নিরাপদ আশ্রয়।

জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে তারা বিভিন্ন ধরনের অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার। রাস্তাঘাটে এক -দুই টাকার জন্য তারা পথচারীকে অনুরোধ করে নানাভাবে। কেউ কেউ আবার কাগজ কুড়োয়। তীব্র শীতের মধ্যেও তাদের প্রায়ই গরম কাপড় ছাড়া দেখা যায়, যা অমানবিক ও দুঃখজনক।

দেশের বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার পথশিশু রয়েছে। পথই যাদের আবাস। পথেই যাদের বসবাস। জন্মের পর থেকেই যারা জীবন যুদ্ধের সঙ্গে পরিচিত। রোদ-বৃষ্টি, গরম-শীত যাদের কাছে সমান। পরনে কাপড় আছে কি নেই তা তাদের কাছে মুখ্য নয়। সকালে ঘুম থেকে উঠেই মায়ের হাতের মজাদার খাবার দিয়ে নাস্তা করার পরিবর্তে তারা মানুষের বকুনি খায়। যখন অন্য শিশুরা পাঠশালায় জ্ঞান অন্বেষণে ব্যস্ত তখন এরা নিজদের ক্ষুণিবৃত্তির অনুসন্ধানে লিপ্ত। ছিন্নবস্ত্র পরিহিত বা বস্ত্রহীন এরাই পথ শিশু নামে সর্বত্র পরিচিত।

পথশিশুকিন্তু একটি শিশু কখনো পথ শিশু হয়ে জন্মায় না। জন্মের সময় প্রতিটি শিশু তার নাগরিক অধিকার নিয়ে জন্মায়। আজ যে শিশু ভালোভাবে কথা বলতে শেখেনি তাকেও জীবিকার তাগিদে ভিক্ষা করতে হচ্ছে। তার কাছে জীবনের মানে হলো ক্ষুধা নিবারণের জন্য পথে পথে ভিক্ষাবৃত্তি করে বেঁচে থাকার লড়াই। এদের এই দুরবস্থার জন্য দায়ী আমাদের পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা।

দেশের পথ শিশুদের সুরক্ষা ও তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রতিবছর আমাদের দেশে পালিত হয় পথ শিশু দিবস। জাতিসংঘ এবং এর অঙ্গ সংগঠন ‘ইউনিসেফ’ শিশু অধিকার ও তাদের স্বাস্থ্য রক্ষায় বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ লোকই দরিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে। এরা সঠিকভাবে শিশুদের গড়ে তুলতে পারে না। তাদের সংসারে অভাব অনটন লেগেই থকে। তারা ছেলে-মেয়েদের ঠিকমত খাবার, চিকিৎসা ও অন্যান্য মৌলিক অধিকার, সুযোগ-সুবিধা প্রদানে ব্যর্থ হয়।

পথশিশুরা কারও না কারও সন্তান, ভাই বা আত্মীয়-স্বজন। সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ হওয়ার কারণে পথশিশুদেরও রয়েছে ন্যায্য অধিকার। স্বাধীন দেশে এ পথশিশুদেরও সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বড় হওয়ার অধিকার আছে। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা এ মৌলিক চাহিদাগুলো যথোপযুক্তভাবে পাওয়ার অধিকার তাদেরও আছে। পথিশিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা বাস্তবায়নের অঙ্গীকারে আজ পালিত হবে জাতীয় পথশিশু দিবস।

২০১৭ সাল থেকে পথশিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশন সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের শিক্ষা, খাদ্য, বস্ত্র, চিকিৎসা ও প্রযুক্তিগত শিক্ষায় দক্ষ করে দেশের সম্পদ হিসেবে প্রস্তুত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

জাতীয় পথশিশু দিবসকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম রেলওয়ে জংশন কেবিনের পাশের সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের একসাথ করে ফল উৎসব আয়োজন করেছে পথশিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম জেলা শাখার অদম্য স্বেচ্ছাসেবীরা।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন-পথশিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান খান ৷ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান খান বলেন,
'পথশিশুরা কারও না কারও সন্তান, ভাই বা আত্মীয়-স্বজন। সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ হওয়ার কারণে পথশিশুদেরও রয়েছে ন্যায্য অধিকার। স্বাধীন দেশে এ পথশিশুদেরও সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে বড় হওয়ার অধিকার আছে। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা এ মৌলিক চাহিদাগুলো যথোপযুক্তভাবে পাওয়ার অধিকার তাদেরও আছে। পথিশিশুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা বাস্তবায়নের অঙ্গীকারবদ্ধ।' এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম শাখার উপদেষ্টা এস এম মিজানুর রহমান, শাখার সভাপতি আমজাদ হোসেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ সোহেল মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক নেজাদ ই দ্বীন, শিক্ষা সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুহী , সহ-শিক্ষা সম্পাদক শারমীন আক্তার সূবর্ণা , প্রোগ্রাম সম্পাদক মোঃ আরিফ, আইসিটি সম্পাদক আফরোজ মাহমুদ,সহ সকল স্বেচ্ছাসেরী বৃন্দ।