বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র ব্যবসায়িদের মাঝে একদল শিক্ষার্থীর উপহারসামগ্রী প্রদান

  • 15 May
  • 11:16 AM

শোভন, বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি 15 May, 20

যেকোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করলেই দেখা মেলে ভ্রাম্যমাণ খাদ্য বিক্রেতাদের, যাদের জীবন-জীবিকা পুরোপুরিই নির্ভর করে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ওপর। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম চালু থাকলে এদের আয়ের চাকা সচল থাকে নতুবা বন্ধ হয়ে যায় এদের আয়ের পথ।

অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েও (বশেমুরবিপ্রবি) রয়েছে এমন বেশ কয়েকজন ভ্রাম্যমাণ খাদ্য বিক্রেতা। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের চাহিদার ওপর নির্ভর করে ক্যাম্পাস সংলগ্ন এলাকায় গড়ে উঠেছে বেশ কিছু চায়ের দোকান। সম্প্রতি করোনার মহামারিতে এসকল ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের আয়ের পথ যখন রুদ্ধ,জীবনযাত্রা যখন স্থবির তখন এদের পাশের দাঁড়িয়েছে বশেরমুরবিপ্রবির একদল শিক্ষার্থী।

শুক্রবার(১৫ই মে) ক্যাম্পাসের ১৭ জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে
১৫ কেজি চাল,৪ কেজি আলু, ২ কেজি ডাল, ১ প্যাকেট লাচ্ছা সেমাই, ১ লিটার তেল এররপ্যাকেজ উপহার সামগ্রী তুলে দেয় শিক্ষার্থীরা । এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদ, নাঈম, রাফি শফিক, সহ পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী নাবিলা।

উপহার সামগ্রী বিতরণ সম্পর্কে আইন বিভাগের শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদ বলেন,' আজ মামাদের সাহায্য করতে পেরে আমরা খুব ই আনন্দিত।
সমগ্র কৃতজ্ঞতা জানাই ১২ হাজার বশেমুরবিপ্রবিয়ানদের যাদের অনুপ্রেরণা আর আর্থিক সহায়তায় আমরা উপহার সামগ্রী মামাদের হাতে তুলে দিতে পেরেছি'।
এদিকে উপহার সামগ্রী পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল (ছেলেদের) গেট এর সামনের চা এর দোকানদার কালন মিয়া, 'বলেন করোনার মধ্যেও মামারা যে আমাদের কথা মনে রেখেছেন, ছাত্র হয়েও আমাদের কষ্টের ভাগীদার হয়েছেন এ জন্য আমরা খুব ই কৃতজ্ঞ। সৃষ্টিকর্তা এই ভার্সিটির সকল ভাইগ্নাদের মঙ্গল করুক'।

উল্লেখ্য, গত ৩রা মে বিশ্ববিদ্যালয়ের এসব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সাহায্যের উদ্দেশ্যে তহবিল গঠনের লক্ষে ক্যাম্পাসে সকলের কাছে রকেট ও বিকাশে আর্থিক সহায়তা চেয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান উক্ত শিক্ষার্থীরা।