ক্যান্সারে আক্রান্ত মাকে বাঁচাতে চায় ইবি শিক্ষার্থী মঞ্জুর

  • 30 May
  • 09:47 AM

আজাহার ইসলাম, ইবি প্রতিনিধি 30 May, 20

মরণব্যাধি প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বাংলা বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মঞ্জুর হাসানের মা। গত ১৪ মে থেকে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তার মায়ের চিকিৎসা সেবায় প্রতিদিন এফএফপি’র (ফ্রেস ফ্রজেন প্লাজমা) প্রয়োজন হচ্ছে। ইতোমধ্যে তার শরীরে ১০-১২ ব্যাগ প্লাজমা দেয়া হয়েছে। মাকে বাঁচাতে হলে দ্রুত সার্জারি করে কেমোথেরাপি দেওয়ার খুবই প্রয়োজন। এমতাবস্থায় তার চিকিৎসা কার্যক্রমে অনেক টাকার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন তার ছেলে মঞ্জুর হাসান।

তিনি বলেন, ২০১১ সালের শেষে গল ব্লাডার অপারেশন ও ২০১২ সালে কেমোথেরাপি দেওয়ার পর দীর্ঘদিন সুস্থ ছিলেন মা। এবারের রোজা ১০টি হলে মা পেটে তীব্র ব্যথা অনুভব করেন। পরে তাকে পাবনা জেলা সদরের শিমলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে পিজি হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেন। গত ১১ তারিখ মাকে নিয়ে পিজি হাসপাতালে যায়। সেখানে বহির্বিভাগে চিকিৎসা করানো গেলেও ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ থাকায় ১৪ তারিখ ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করাই।

তিনি আরো বলেন, প্যানক্রিয়াসের টিউমারটি ফেটে সেটা ক্যান্সারে রুপ নিয়েছে। ঢাকায় এসেই সার্জারি করলে অনেক ভালো হতো কিন্তু তখন ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ ছিল। পরে জন্ডিসে রুপ নিয়েছে। জন্ডিস মাত্রাতিরিক্ত হওয়ায় মায়ের অপারেশন করতে পারছি না। এখন পর্যন্ত ১০-১২ ব্যাগ প্লাজমা দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন অনেক টাকার প্রয়োজন পড়ছে। জন্ডিসের ইনজেকশন পুশ, পরবর্তিতে সার্জারি ও কেমোথেরাপিতে অনেক টাকার প্রয়োজন।

এসময় মায়ের চিকিৎসায় আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে তার তিনি, তার পরিবার ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। একজন মাকে সুস্থ্য করে সন্তানের মুখে হাসি ফোঁটাতে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তারা।