করোনা মোকাবেলায় 'জিএমএস' এর উদ্যোগ

  • 02 June
  • 11:03 AM

এস আহমেদ ফাহিম, নোবিপ্রবি প্রতিনিধি 02 June, 20

করোনা মহামারীতে বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে মৃতের শংখ্যা ও আক্রান্তের সংখ্যা।এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে " করোনা মহামারীর ধ্বংসলীলা" রুখতে গ্রাজুয়েট মাইক্রোবায়োলজিস্ট সোসাইটি (জিএমএস), বাংলাদেশ এর উদ্যোগের সাথে সকলকে শামিল হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাস লিখেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) এর অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও গ্রাজুয়েট মাইক্রোবায়োলজিস্ট সোসাইটি (জিএমএস) এর সভাপতি ডঃ ফিরোজ আহমেদ।


ফেসবুক স্ট্যাটাসটি নিচে দেওয়া হলো:

বৈশ্বিক করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে মহাযুদ্ধ চলছে। দীর্ঘ লকডাউনে আমরা কতটা সফল হয়েছি, সেই বিচারের সময় এখন নয়। অনেকটা বাধ্য হয়েই অস্থিতিশীল পরিস্থিতির উত্তরণ ঘটাতে এবং অসহায় মানুষের জীবন বাঁচাতে সরকার সীমিত আকারে লকডাউন প্রত্যাহার করেছে। দেশের অর্থনীতির চাকা সচল করতে না পারলে জাতিকে চরম বিপর্যয়কর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে। সুতরাং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরিধান করা সহ সকল স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নির্দেশনা মেনে চলা আমাদের মানবিক ও নাগরিক দায়িত্ব।

আমরা সবাই জানি এত কিছুর পরও আমাদের রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে এবং আরও বাড়তে থাকবে। কারণ কেবল আমরা নই, সারা বিশ্বই নতুন এমন একটি অতি সংক্রামক প্রাণঘাতী, কোভিড-১৯ ভাইরাস এর মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত ছিল না। তারপরও বিশ্বের সকল বিজ্ঞানী ও স্বাস্থ্য সেবার সাথে সংশ্লিষ্ট সমস্ত পেশাজীবী সার্বক্ষণিক বৈশ্বিক তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ সহ সর্বশক্তি দিয়ে মানবজাতিকে রক্ষা করার প্রাণান্ত চেষ্টা করে যাচ্ছে। একইসাথে সারা বিশ্বের অণুজীব বিজ্ঞানীরা ব্যস্ত আছেন পরিবেশ ও প্রতিবেশ পর্যালোচনা সাপেক্ষে কোভিড-১৯ ভাইরাসের রোগতত্ত্ব বিশ্লেষণ ও সাম্প্রতিক আবিষ্কৃত নানামুখী পদ্ধতি প্রয়োগে রোগ নির্ণয়ের সম্মুখযুদ্ধে। তবে, বাংলাদেশের জনসংখ্যার বিচারে করোনা ভাইরাসের মহামারী নিরসনে ফ্রন্ট লাইনার হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন নিবেদিতপ্রাণ স্বল্পসংখ্যক 'করোনা যোদ্ধা'।

সার্বিক পরিস্থিতির বিশ্লেষণে মনে হচ্ছে, বাংলাদেশে এমন 'করোনা যোদ্ধা' দের সংখ্যা অনেক বাড়াতে হবে। বলতে বাধা নেই, একটি নির্দিষ্ট বিশেষজ্ঞ গোষ্ঠীর কাছে বাক্সবন্দী অবস্থা থেকে ফেটে বেরিয়ে 'করোনা ভাইরাস' এখন জনতার। সরকারের আপ্রাণ প্রচার প্রচেষ্টা, মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে ভাইরাসটি সম্পর্কে আপামর জনসাধারণ যথেষ্ট ধারণা অর্জন করেছে। এখন ভয় কে জয় করে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমাদেরকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে হবে। দ্রুত দেশের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়ন ঘটাতে তৈরি করতে হবে হাজার হাজার সহযোগী 'করোনা যোদ্ধা'।

মুক্তিযুদ্ধ সহ নানা সংকট মোকাবেলায় আমাদের অতীত ইতিহাস অত্যন্ত সমৃদ্ধ। আমরা কখনও হেরে যাইনি, বার বার জিতেছি। এবারের 'করোনা যুদ্ধে'ও আমরা জিতব। দেশের বর্তমান সংকট উত্তরণে 'গ্রাজুয়েট মাইক্রোবায়োলজিস্ট সোসাইটি (জিএমএস), বাংলাদেশ' প্রয়োজনীয় নিবেদিত স্বেচ্ছাসেবক 'করোনা যোদ্ধা' তৈরীর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। সকল ব্যক্তিগত ও গোষ্ঠীগত এবং দলীয় স্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে জাতীয় স্বার্থে আমাদের একসাথে কাজ করতে হবে।

অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে ইতোমধ্যে আমরা দেশ ও বিদেশে অবস্থানরত সকল অণুজীব বিজ্ঞানীদের অনুরোধ করেছি আর্থিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য। আপনিও চাইলে আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য করে আমাদের এই মহৎ কাজের অংশিদার হতে পারেন। আপনার জন্য সহজ, নিচের এমন যে কোন একটি পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি আমাদেরকে সাহায্য পাঠাতে পারেন।

বাংলাদেশ বেঁচে থাক তাঁর চিরন্তন বীরত্বগাথা সত্তা নিয়ে।

দেশ ও বিদেশের সবার জন্য পদ্ধতি গুলো নিম্নরূপ:

Option-1 (PayPal):

Send it to our email address at: asim03173@yahoo.com

Option-2 (Bank Transfer via Zelle):

Asim Bikash Dey
Tel: +1 (317) 476-4694

Option-3 (For e-transfer in Canada):

Mohammad Ilias
email: ilias14@yahoo.com
Tel: 1-647-534-9821

Option-4 (for friends in Bangladesh)/ বাংলাদেশি বন্ধুদের জন্য পছন্দ পদ্ধতি:

Send via Bkash (Personal)/ব্যক্তিগত বিকাশ নম্বর : +880 19 3145 1655

Send via Nagad (Personal)/ ব্যক্তিগত নগদ নম্বর: +880 19 3145 1655

Option 5 (Bank Transfer for friends in Bangladesh)/ বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর জন্য ব্যাংক একাউন্ট :

A/C Name: Graduate Microbiologists Association
Bank: Agrani Bank Limited, Dhaka University Branch
A/C No: 0200000936055
SWIFT: AGBKBDDH
(For foreign transactions)