করোনার ভয়কে জয় করেছে ফয়েজউল্লাহ মানিকের 'জয় বাংলা স্কোয়াড'

  • 11 May
  • 12:31 PM

ফরিদ আহমেদ জয়, নিজস্ব প্রতিনিধি 11 May, 20

সারা পৃথিবীতে যখন করোনা ভাইরাসে আতংক। করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের মানুষও কাটাচ্ছে ঘরবন্দি জীবন। এতে করে বড় বিপদে পড়েছেন নিম্ন আয়ের ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষেরা।এতে অসহায় হয়ে পড়েছেন খেটে খাওয়া মানুষ। শুধু বাংলাদেশেই নয়, বিশ্বের সব স্থানে একই অবস্থা। ঠিক এই করোনা ভাইরাসের মতো মহামারী পরিস্থিতিতে এগিয়ে এসেছে সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন “ জয় বাংলা স্কোয়াড”। সেচ্ছাসেবী এই সংগঠনের উদ্যোক্তা এবং প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মী ভূঁইয়া মোঃ ফয়েজউল্লাহ মানিকের কাছে মানবতা আর মমতাই জীবনের এক নিদর্শন।

‘মানুষের সেবায় সর্বদা প্রস্তুত’ স্লোগানকে সামনে রেখে জরুরি সেবা দিয়ে যাচ্ছে ‘জয় বাংলা স্কোয়াড’। অবরুদ্ধ শহরবাসীকে লকডাউনের শুরুর দিক থেকেই নানান সেবা দিচ্ছে স্বেচ্ছাসেবী এ টিম। এসকল সেবার মধ্যে রয়েছে, জরুরি পরিবহন, নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য-সামগ্রী পরিবহন, নিরাপত্তা সামগ্রী ও ওষুধ সরবরাহ, তথ্য হাব (এরিয়া ভিত্তিক), ইমার্জেন্সি স্বাস্থ্যসেবা (ঘরে যাবে ডাক্তার) রয়েছে। এছাড়াও দরিদ্র ও অসহায়দের ত্রাণ পৌছে দিচ্ছেন এ টিমের সদস্যরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভুরিভুরি প্রসংশা কুড়ানো এ সংগঠনের উদ্যোক্তা এবং প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মী ভূঁইয়া মোঃ ফয়েজউল্লাহ মানিক। জয় বাংলা স্কোয়াডের উদ্যোগে এই কার্যক্রমে বর্তমানে সারা দেশের ২১ টি জেলার ৩৭ টি উপজেলায় প্রায় চার সহস্রাধিক স্বেচ্ছাসেবক এ টিমের হয়ে সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছে। আর জয় বাংলা স্কোয়াড এর পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য বিষয়ক পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন ডাঃ হারুন অর রশিদ সাগর।

সংগঠনটির উদ্যোক্তা এবং প্রধান সমন্বয়ক ভূঁইয়া মোঃ ফয়েজউল্লাহ মানিক জানান, সংগঠনের পক্ষ থেকে এই পর্যন্ত খাবার সহায়তা দেয়া হয়েছে প্রায় ৩০০০ পরিবারকে। উল্লেখ্য এই সকল পরিবারের মধ্যে অধিকাংশই নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার ছিলো , ছোট চাকুরী করা বা করোনা পরিস্থিতিতে চাকুরি হারিয়েছেন বা উপস্থিত সময়ে সংকটে পড়েছেন, এদেরকে সহযোগিতা করা হয়েছে। সাতশো'র ও (৭০০+) বেশি ফ্রি রাইড সেবা দেওয়া হয়েছে। লকডাউনে চারশো'র (৪০০+) বেশি পরিবারের বাজার বাসায় পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছেন ২৫০০টিরও বেশি। ‘ডাক্তার যাবে বাড়ি’ কার্যক্রম এ সেবা পেয়েছে ১৭ টি পরিবার।জরুরী রক্ত ম্যানেজ করা সংক্রান্ত সহায়তা পেয়েছেন ২০০টিরও বেশি। অসহায় মানুষদের ৫ দিনে একবেলা করে খাওয়ানো হয়েছে ৭০০ জনকে। তাছাড়াও অসহায় মানুষের মাঝে বেশ কয়েকবার খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এখন পর্যন্ত সারাদেশের করোনা পরিস্থিতিতে চারশো'র (৪০০+) বেশি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সহায়তা করা হয়েছে। যার মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ২০০ জন শিক্ষার্থীকে সহায়তা করা হয়েছে।

সেবার ধরন নিয়ে জয় বাংলা স্কোয়াডের প্রধান সমন্বয়ক ভূঁইয়া মোঃ ফয়েজউল্লাহ মানিক বলেন, ‘সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ভয়াল থাবা থেকে রেহাই পায়নি। জাতির এ ক্রান্তিকালীন সময়ে মানবিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেই আমাদের ক্ষুদ্র প্রয়াস এই “জয় বাংলা স্কোয়াড”। আমাদের টিমের সদস্যরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে জরুরি সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা নিজের পরিবার, সমাজ তথা রাষ্ট্রের সুরক্ষায় ঘরে থাকুন, আপনাদের প্রয়োজনে আমরা প্রস্তুত আছি।’ সবশেষে তিনি স্কোয়াডের সহযোগী সমন্বয়ক নাসির উদ্দিন,আব্দুল হাই সেলিম,আশরাফুল রনি,রেজওয়ানুর রহমান, কাউসার আহমেদ,ইশতিয়াক আহমেদ শরীফ,ইব্রাহিম রাসেল,আনিসুর রহমান-সহ সকল শুভানুধ্যায়ীগণের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন - “আপনারা হয়তো জেনে থাকবেন, কোনো রকম ফান্ড রেইজ না করেই কেবল সমন্বয়কগনের অক্লান্ত পরিশ্রম আর স্বেচ্ছাসেবকগণের স্বেচ্ছায় সেবা দানের মানসিকতা আর শুভানুধ্যায়ীগণের সহযোগিতায় এই দীর্ঘ অস্বস্তিকর সময় মোকাবিলা করে যাচ্ছে জয় বাংলা স্কোয়াড। মানবিক সমাজ বিনির্মানে সকলের সহযোগিতার প্রয়াস বিস্তৃত হোক, এটাই আমাদের চাওয়া। ”
জয় বাংলা স্কোয়াডের সকল স্বেচ্ছাসেবক যারা দেশের বিভিন্ন স্থানে কাজ করছে তাদেরকে সহযোগিতা করতে সবার প্রতি বিনীত অনুরোধ জানান।