দেশের জন্য সবাইকে একসাথে কাজ করার আহবান কুয়েট ছাত্রনেতার

  • 01 Apr
  • 01:14 PM

কুয়েট প্রতিনিধি 01 Apr, 20

করোনা ভাইরাসের মতো মহামারী ভাইরাসের থাবায় জনজীবন আজ বিপর্যস্ত!! বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশে লকডাউন এর ফলে সবচেয়ে বেশি অসুবিধায় পরে নিন্মবিত্ত মানুষগুলু।এ সময় সবাইকে একসাথে কাজ করার আহবান জানান কুয়েট সাবেক ছাত্রলীগ নেতা।

তিনি বলেন, বাঙ্গালী বীরের জাতি।যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় এই জাতি হার মানার নয়।
একাত্তর সালে বাঙ্গালী জাতি যার যা ছিলো,তা নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছে।মাত্র ০৯ মাসে দেশকে স্বাধীন করেছিলো যা পৃথিবীর অন্যান্য দেশের কাছে দৃষ্টান্ত।

করোনা ভাইরাস একটি যুদ্ধ।সর্বোচ্চ সতর্কতা অবম্বন করতে হবে এর মোকাবিলায়।ব্যক্তিগত থেকে শুরু করে পাড়া মহল্লায়,চায়ের দোকানে,পুলিস,আর্মি,রাস্ট্রীয় ব্যাবস্থাপনার সকলের সম্মিল্লিত প্রচেষ্টায় এই দুর্যোগ মোকাবিলা করা সম্ভব।

তবে সবচেয়ে যে প্রবলেম এ বেশি পড়তে পারি,তা হলো ক্ষুধার কষ্ট৷আমরা করোনা আক্রান্তে না যত মানুষ মারা যাবো,তার থেকে বেশি মারা জাবো না খেতে পেয়ে।

অনেক রিক্সাওয়ালা এখন দিনে ২০০ টাকা ভাড়া মারে,আগে যেখানে ভাড়া মারতো ৭০০-৮০০ টাকা।গরীব ভিখারী আজ ভিক্ষা করার সাহস পাচ্ছে না।মুচি আজ দোকান খুলতে পারছে না।এদের তো জমানো টাকা নাই।এরা আমাদের আপনজন,এরা আমার ভাই।

আমিও তো হতে পারতাম রিক্সাওয়ালা,দিনমজুর,পথের ভিখারী।

রাস্তায় পুলিশের ভয়ে ভিক্ষুক ও কম।তাও পেট চালানোর দায়ে দুই একজন দাদার বয়সী মানুষ দেখা যাচ্ছে।

এখন আমরা যুবক।আল্লাহ্ পাক দয়া করে আমাদের অনেক কেই সামার্থ দিয়েছেন। চলেন না একাত্তর সালে আমাদের বাপ দাদারা যেভাবে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন,আমরা আজ তাদের মতো না পারি,অন্তত যার যা সামর্থ আছে প্রত্যেকে একবেলা করে গরীব মানুষের খাবার কিনে দিতে পারি।

তিনি এই সময় সবাইকে এগিয়ে এসে সবার সহযোগিতায় করনা মোকাবেলা করার আহবান জানান।

মেহেদী হাসান তুষার।
বি.এস.সি ইন আই.পি.ই.(কুয়েট)
সাবেক সহ-সভাপতি ও বিপ্লবী সাংগঠনিক সম্পাদক,বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,কুয়েট।