এই ছুটির শেষ কোথায়?

  • 31 Aug
  • 07:40 PM

ভার্সিটি ভয়েস ডেস্ক 31 Aug, 21

প্রতিটা শিক্ষার্থীর কাছে অত্যন্ত আনন্দের একটি শব্দ হচ্ছে ছুটি। ছুটির নোটিশ পাওয়া মাত্রই ক্লাস জুড়ে হৈ-হুল্লোড়ের কোনো সীমা থাকে না। কিন্তু করোনার দেড় বছরে এই ছুটি শব্দটা জীবনে ভিন্ন মাত্রা এনে দিয়েছে। '২০২০ সাল'- বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম বছর। হাজারো স্বপ্ন, আশা এবং উৎসুক চাহনী নিয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পা রাখে প্রথমবর্ষের হাজারো শিক্ষার্থী।

শিক্ষা-সংস্কৃতি, হাসি-আড্ডায় প্রতিটা মুহূর্ত কাটবে- এরকম প্রত্যাশায় ছিল সবার মাঝে। শুরুটা সুন্দর হলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয়ে উঠেনি। তিন মাস ক্লাস করারও সৌভাগ্য হয়নি কারোর। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মার্চের মাঝামাঝি বাংলাদেশের সকল শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়। সেখান থেকেই শুরু হয় শিক্ষাজীবনের দীর্ঘমেয়াদী ছুটি। এই ছুটি ধাপে ধাপে বাড়তে বাড়তে ২০২১-এর শেষ পর্যায়ে এসে ঠেকেছে। আজও কেউ নিশ্চিত নয়, এই ছুটির শেষ কোথায়। এই দীর্ঘমেয়াদী এবং অনাকাঙ্ক্ষিত ছুটির জেরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম হতাশার সৃষ্টি হয়েছে।

বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ নিয়েও সবার মাঝে উদ্বেগ বেড়ে গেছে। সেই সঙ্গে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যেও দূরত্ব বেড়ে যাচ্ছে। এই দীর্ঘমেয়াদী ছুটি থেকে সবাই এখন মুক্তি চায়। ফিরতে চায় তাঁদের প্রাণের ক্যাম্পাসে। ছুটি শব্দটা যেন তাদের সবার জীবনকে বিষিয়ে তুলেছে। তাইতো আজও সবাই উৎসুক দৃষ্টিতে অপেক্ষার প্রহর গুনছে। কবে খুলবে ক‍্যাম্পাস, আবার কবে হাজারো পদচারণার ভিড়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে সবাই, আবার কোন দিন শান্ত চত্বরে বন্ধুরা মিলে হাসি-আড্ডায় মেতে উঠবে- এমন অনেক আশা নিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিটা মুহূর্ত পার করছে। তাদের সম্মিলিত চাওয়া এখন একটাই: "এই ছুটির অবসান হোক, শেষ হোক তাঁদের অপেক্ষার, সকলের ভেঙ্গে যাওয়া স্বপ্নগুলো আবার উজ্জীবিত হোক।"

সবাই এখন মুক্তি চায়। ফিরতে চায় তাঁদের প্রাণের ক্যাম্পাসে। ছুটি শব্দটা যেন তাদের সবার জীবনকে বিষিয়ে তুলেছে। তাইতো আজও সবাই উৎসুক দৃষ্টিতে অপেক্ষার প্রহর গুনছে। কবে খুলবে ক‍্যাম্পাস, আবার কবে হাজারো পদচারণার ভিড়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করবে সবাই, আবার কোন দিন শান্ত চত্বরে বন্ধুরা মিলে হাসি-আড্ডায় মেতে উঠবে- এমন অনেক আশা নিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিটা মুহূর্ত পার করছে। তাদের সম্মিলিত চাওয়া এখন একটাই: "এই ছুটির অবসান হোক, শেষ হোক তাঁদের অপেক্ষার, সকলের ভেঙ্গে যাওয়া স্বপ্নগুলো আবার উজ্জীবিত হোক।"

-
শিউলি আক্তার
শিক্ষার্থী, সমাজকর্ম বিভাগ,জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।