ঈদেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বাড়ি ফিরছে হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

  • 14 July
  • 05:37 PM

আব্দুল্লাহ আল মুবাশ্বির, হাবিপ্রবি প্রতিনিধি 14 July, 21

সশরীরে পরীক্ষা দিতে এসে লকডাউনে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দেবার পর এবার দ্বিতীয় ধাপে দিনাজপুরে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) কর্তৃপক্ষ। এরআগে প্রথম ধাপে পরীক্ষা দিতে এসে লকডাউনে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দিতে ১২ টি রুটে পরিবহন সুবিধা দিয়েছিলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু ঐ সময় কিছু শিক্ষার্থী বাড়ি না ফেরায় ঈদে বাড়ি ফেরার জন্য পুনরায় শিক্ষার্থীদের জন্য ১৩ টি রুটে বাস দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন শাখা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন শাখার পরিচালক অধ্যাপক ড. মফিজুল ইসলাম জানান, 'লকডাউনে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের বাড়ি পৌঁছে দিতে গত ২৮ জুন থেকে জুলাই মাসের ১ তারিখ পর্যন্ত মোট ১২ টি রুটে বাস দিয়েছিলাম আমরা। কিন্তু ঐ সময় যে সকল শিক্ষার্থী বাড়ি ফিরেননি,তাদের জন্য পরবর্তীতে আরও ১৪টি বাসের শিডিউল করে দেওয়া হয়েছে'।

তিনি আরও জানান, 'প্রথম ধাপে ১২ টি বাস দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে শিক্ষার্থীদের পৌঁছে দিয়েছে। বাকি শিক্ষার্থীদের বাড়ি ফিরতে তাদের চাহিদা অনুযায়ী পুনরায় ১৫ জুলাই পর্যন্ত আরও ১৪ টি বাসের শিডিউল করে দিয়েছি আমরা। ইতিমধ্যে খুলনা, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, বগুড়া, রাজশাহী, কুড়িগ্রাম, পঞ্চগড়, পাবনা, নাটোর,ঢাকা,কুষ্টিয়া এবং রংপুরসহ বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে শিক্ষার্থীরা পৌঁছে গিয়েছে'।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বাড়ি ফেরার অনুভূতি জানতে চাইলে ফিসারিজ অনুষদের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো: নাজমুল শাকিল বলেন, 'প্রথম দফায় যখন ক্যাম্পাসে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের নিজ জেলায় পৌঁছানোর ব্যবস্থা করলো হাবিপ্রবি প্রশাসন, সেসময় টিউশনসহ বেশ কিছু জটিলতায় আমার বাসাই যাওয়া হয়নি। পরবর্তীতে আবার এমন সুযোগ আসবে ভাবতে পারিনি। প্রিয় ক্যাম্পাসের বাসে বাড়ি পর্যন্ত আসার সুখস্মৃতি সত্যিই ভুলবার নয়'।

অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী শাকিউল হোসেন সৈকত জানান, 'নিঃসন্দেহে এটি একটি ভালো অনুভূতি ছিলো। স্মরণীয় ভ্রমন হয়ে থাকবে। অনেক ভালো সার্ভিস ছিলো'।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন গত ১০ জুন থেকে সশরীরে পরীক্ষার ঘোষণা দিলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাবিপ্রবিতে ফিরেন শিক্ষার্থীরা। এরপর দিনাজপুর এবং দেশের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হলে দু'দফায় পরীক্ষা স্থগিত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরই কিছু দিন পরেই সারাদেশে কঠোর লকডাউন ঘোষিত হলে আটকে পড়ে পরীক্ষা দিতে আসা হাজারো শিক্ষার্থী। আটকে পড়া এসব শিক্ষার্থীদের বিভাগীয় শহরগুলোতে পৌঁছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন সুবিধা প্রদান করে হাবিপ্রবি প্রশাসন।