‘আমার ডিআইইউ ক্যাম্পাস’

  • 24 May
  • 09:00 AM

ইব্রাহিম প্রামানিক 24 May, 21

"প্রতিদিন ভোরবেলা থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত নিত্যদিন যে প্রিয় বিদ্যাপীঠে চলতো শিক্ষার্থীদের মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়াবার প্রয়াস,আনন্দ বিলানোর জন্য, আড্ডা,প্রেজেন্টেশন, পরীক্ষাসহ নানা কার্যক্রম। এর মধ্যেই রাজনৈতিক,সাংস্কৃতিক,সাংবাদিকসহ সব সংগঠনগুলো ব্যস্ত থাকত, সকল প্রকার জ্ঞানচর্চা, জ্ঞান বিতরণ এবং আহরণ সহ সকল আড্ডাখানা নিয়ে। এই সব কিছুই যাদের কেন্দ্র করে গড়ে উঠতো তারা হলেন এক একজন মেধাবী শিক্ষার্থী।
ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি(ডিআইইউ) ও ঠিক তেমনই একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম। সবুজ ছায়া ঘেরা,একদম শহুরে কোলাহল থেকে মুক্ত, শান্ত ও শিক্ষার পরিবেশ বেষ্টিত একটি ক্যাম্পাস, দেশের সকল শিক্ষাঙ্গনের মধ্যে অন্যতম নান্দনিক একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আমার ও আমাদের 'ডিআইইউ'।

দেশে গড়ে ওঠা সু-প্রতিষ্ঠিত সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে নিত্যনৈমিত্তিক নানা আয়োজন থাকতো, ব্যস্ত থাকতো সৃষ্টিশীল নানা কর্মকান্ড। এমন বহু কাজের সাথে মিশে আছে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর হৃদয়ের স্পন্দনে।বলা হয়ে থাকে একটি বিশ্ববিদ্যালয় একটি রাষ্ট্রের ন্যায়।চলে সকল প্রকার গবেষণা,সভা-মিছিল,আনন্দ-উল্লাস এবং রাজনৈতিক ও সচিবালয়ের আদলে দাপ্তরিক ব্যস্ততা। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে প্রতিমুহূর্তে থাকে উন্মুক্ত জ্ঞানচর্চার আড্ডা।ক্যাম্পাসের আঙিনায় শতসহস্র ভিড় জমায় আগামীর প্রজন্মরা।

কোভিড-১৯ নামক একটি মহামারী করোনাভাইরাস একটি মারাত্মক ব্যাধি।সকল দেশকে এই মহামারী করোনাভাইরাস গ্রাস করেছে। বাংলাদেশেও যে এমন আঘাত হানবে তা অকল্পনীয় ছিল। কোভিড-১৯ এই মারাত্মক ব্যাধির সংক্রমণ এড়াতে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থগিত করে রাখা হয়েছে।

এদিকে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের কোনো না কোনো আয়োজন তো থাকেই। কিন্তু করোনা ভাইরাস নামক মহামারীর কারণে ক্যাম্পাস বন্ধ রয়েছে। যে ক্যাম্পাসে হাজারো বিদ্যার্থীর পদাচরণে ভিড় জমিয়ে থাকতো,সেখানে এখন শুধুই নীরবতা। ক্যাম্পাস জুড়ে এখন সুনশান ও পাখিদের আনাগোনা । এখন সেই প্রিয় ক্যাম্পাস প্রাণশূণ্য।
তবে ক্যাম্পাসের সিনিয়র-জুনিয়র,বন্ধু আর শিক্ষকদের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ রয়েছে অনলাইন মাধ্যমে। আর বিভিন্ন সংগঠন গুলোর কার্যক্রম ও থেমে নেই। সকল প্রকার সংগঠনই নিজ-জায়গা থেকে সামাজিক ও রাজনৈতিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে অনলাইন মাধ্যমে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বড় ভাইদের ও বন্ধুদের খুব মিস করছি। এই মহামারীর দুর্যোগে কেমন আছে আমাদের সেই চির মুখগুলি? আশা নিয়ে বিশ্বাসে জাগ্রত আছি খুব শিগগিরই সুস্থ হবে পৃথিবী, ফিরতে পারবো আমরা আবার আমাদের সেই প্রিয় প্রাণের ক্যাম্পাসে। এই থমকে যাওয়া পৃথিবী আবারও প্রাণ ফিরে পাবে, সেই সঙ্গে দূরন্ত তারুণ্যে প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে আমাদেরই 'ডিআইইউ' ক্যাম্পাস। দেশের শিক্ষাঙ্গনে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে ও ধারাবাহিক ভাবে শক্তিশালী অবদান রাখতে সক্ষম হবে ঠিক যেমনটি গত ২৬-টি বছর ধরে করে আসছে!"


লেখকঃ
মো. ইব্রাহীম প্রামানিক
ডিপার্টমেন্ট অফ পলিটিক্যাল সাইন্স
এক্সিকিউটিভ মেম্বার,
ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতি।