আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ইইই ডিপার্টমেন্ট

  • 08 Jan
  • 10:36 AM

ক্যাম্পাস প্রতিনিধি 08 Jan, 20

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম এর ইইই ডিপার্টমেন্ট। লাঞ্ছিত হওয়া শিক্ষক ইইই ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান ডক্টর মোঃ শামীমুল হক চৌধুরী। আজ অনির্দিষ্টকালের বন্ধের এই ঘোষণা দেন ইইই ডিপার্টমেন্টের শিক্ষকবৃন্দ।
ডিপার্টমেন্ট থেকে প্রকাশিত জরুরী বিবৃতিতে বলা হয়, গত ০৭-০১-২০২০ ইং বিকাল আনুমানিক ২:৪৫ সময়ে ইইই ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যানের সাথে কিছু সংখ্যক উশৃঙ্খল ছাত্র গালিগালাজ, বাকবিতণ্ডা ও অশালীন আচারণ করে। চেয়ারম্যানকে নানাবিধ হুমকি দেয় এবং শারীরিকভাবে হেনস্থা করে। একই সময়ে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে যেতে হুমকি প্রদান করে। বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয় যে, উশৃঙ্খল ছাত্ররা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন একাডেমিক কার্যক্রমে অনৈতিক চাপ প্রয়োগ করে আসছিলো। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অত্র ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যানের নামে বিভিন্ন ধরনের আপত্তিকর পোষ্ট দিয়ে আসছিলো।
উল্লেখ্য, এর আগেও গত বছরের এপ্রিলে ঐসব উশৃঙ্খল ছাত্ররা ইইই ডিপার্টমেন্টে হামলা ও ভাংচুর করে। এ বিষয়ে তৎকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দোষীদের শাস্তির বিষয়ে লিখিত আশ্বাস দিলেও দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। যার পরিপ্রেক্ষিতে ইইই ডিপার্টমেন্টের সকল শিক্ষক অনির্দিষ্টকালের জন্য ডিপার্টমেন্টের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
এদিকে লাঞ্ছনার শিকার ইইই ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান ডক্টর মোহাম্মদ শামীমুল হক চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে গণমাধ্যম কর্মীদের কে ওজানিয়েছেন, নামধারী ছাত্রলীগের কিছু সংখ্যক উশৃঙ্খল ছাত্র হঠাৎ ই আমাকে গালিগালাজ শুরু করে। ক্লাস চলাকালীন সময়ে আমার ছাত্রদেরকে ক্লাস থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে তারা আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে এবং অকথ্য ভাষায় চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে যেতে বলে। এছাড়াও আমার বাচ্চাদের স্কুলে যাওয়ার পথে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুমকি দেয়। হুমকি প্রদানকারীর মধ্যে ছাত্রলীগের উচো মারমার আচারণ ছিল সবচেয়ে বাজে। সে আমাকে 'তুই' বলে সম্বোধন করে চেয়ারম্যান পদ ছাড়তে বলে।
এদিকে শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা গেছে।