পথাচলার আট বছরে ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ

  • 21 Apr
  • 05:57 PM

মাহাথির মোহাম্মদ প্লাবন, ফরিদপুর প্রতিনিধি 21 Apr, 21

ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বাংলাদেশের ফরিদপুর শহরে অবস্থিত একটি স্নাতক পর্যায়ের সরকারি প্রকৌশল কলেজ। ২০১০ সালে এই কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের অধিভুক্ত ও এটি চার বছর মেয়াদী বিএসসি ইন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি প্রদান করে থাকে।২০০৫ সালে বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে এবং শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ৫৩ কোটি টাকা ব্যায়ে ফরিদপুর শহরতলীর বায়তুল আমান এলাকায়.৭.৫ একর জমির উপর ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ও ২০১০ সালের দিকে কাজ শেষ হয়।ঐ বছরই শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করার কথা থাকলেও বিদ্যুৎ ও পানি সংযোগের জটিলতার কারণে পরবর্তী তিন বছরে কর্তৃপক্ষ প্রকৌশল কলেজটি চালু করতে পারেনি। অবশেষে ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষে সালে কলেজে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। আজকের এই দিনে প্রথম ব্যাচের ওরিয়েন্টেশন এর মাধ্যমে একাডেমিক পথ চলা আরম্ভ। আজকের দিনটিকে তথা ২১এপ্রিল কে ফইক শিক্ষার্থীরা " ক্যাম্পাস ডে" হিসেবে পালন করে আসছেন।প্রতিবছর বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও নানান বৈচিত্রপূর্ণ আয়োজন করে থাকেন অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সকালে পুরো শহর এক পাক ঘুরে আসে বিশাল শোভাযাত্রা নিয়ে। ব্যান্ডপার্টি, ঘোড়ার গাড়ি, নানা রকম ফেস্টুন আর সবার একই রকম টি-শার্ট গায়ে বেশ নান্দনিক ভাবে অনুষ্ঠিত হয়ে থাকতো এই শোভাযাত্রাটি।তারপর কেক কাটা, আবির খেলা, দুপুরে ক্যাম্পাসের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী থেকে শুরু করে ছাত্র -শিক্ষক ও অন্যান্য সকল কর্মচারী-কর্মকর্তারা মিলে খাওয়া দাওয়া।সারা বিকেল জুড়ে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ সহ নানা ধরনের খেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে এবং রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।কিন্তু বিশ্ব করোনা মহামারীর কারণে, গতবছর ও এবছর ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায়,শিক্ষার্থীরা ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।
প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে অত্র কলেজের অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ফইক শাখার নেতৃত্ববৃন্দরা সহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা পৃথক পৃথক বাণি দেন।

উল্লেখ্য যে,ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে তড়িৎ প্রকৌশল, পুরকৌশল ও কম্পিউটার প্রকৌশল (কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল) এই ৩টি প্রযুক্তি বিভাগে পড়ানোর কথা থাকলেও, প্রাথমিক ভাবে তড়িৎ প্রকৌশল ও পুরকৌশল বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয় ও এবং প্রথম বছর ৬০ জন করে দুই বিভাগে ১২০ জন ভর্তি করা হয়। বর্তমানে,অত্র প্রতিষ্ঠানে ৩টি বিভাগে ৬০জন করে ১৮০জন ভর্তি করা হয়। ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ফরিদপুর শহর থেকে ১.২০ কি.মি দূরে অবস্থিত। ৫ একরের উপর নির্মিত এই কলেজ ক্যাম্পাসে ১০টি প্রাতিষ্ঠানিক ভবন হয়েছে। কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্রদের জন্য ছাত্রাবাস ও ছাত্রীদের জন্য ছাত্রী নিবাস রয়েছে। এছাড়াও ক্যাম্পাসে ব্যাংক, ডাকঘর, ক্যাফেটারিয়া, গ্রন্থাগার, ৩৬০টি কম্পিউটার সংবলিত আধুনিক ল্যাব, সিভিল ল্যাব প্রভৃতি সুযোগ সুবিধা রয়েছে।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আজকের দিনটি নিয়ে শিক্ষার্থীরা অনুভূতি প্রকাশ করছে যার যার ওয়ালে পোস্ট করে। সবার একটাই প্রত্যাশা যেন মহামারী করোনার প্রকোপ দ্রুত কেটে যায় আবার সাড়ে সাত একরের ক্যাম্পাসে এসে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে।