অনলাইন ক্লাসে যাচ্ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

  • 02 July
  • 11:41 AM

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ, জবি প্রতিনিধি 02 July, 20

আগামী সপ্তাহ থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু করতে যাচ্ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)। তবে অনলাইনে মিডটার্ম বা সেমিস্টার ফাইনাল কোনো ধরণের পরীক্ষাই হবে না। চলমান সেমিস্টারের থিওরি ক্লাস আগামী আগস্টের মধ্যে শেষ করে সেপ্টেম্বরে পরবর্তী সেমিস্টারের ক্লাস শুরু হবে।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। এর আগে সকাল ১১.০০ টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, সকল অনুষদের ডীন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, রেজিস্ট্রার, বিভাগীয় চেয়ারম্যানদের নিয়ে অনলাইন বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আগামী ১ (এক) সপ্তাহের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগ ও ইনস্টিটিউট অনলাইন ক্লাস শুরু করবে। ক্লাসের ভিডিও ইউটিউব ও ফেসবুকে আপলোড করতে হবে যেন শিক্ষার্থী যেকোনো সময় তা দেখতে পারে। চলমান সেমিস্টারের অসম্পন্ন থিওরিটিক্যাল ক্লাসসমূহ এবং ৪র্থ বর্ষ ও মাস্টার্স-এর শেষ সেমিস্টারের থিওরিটিক্যল ক্লাসমূহ আগস্টের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে এবং সেপ্টেম্বর থেকে পরবর্তী সেমিস্টার শুরু হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, মিডটার্ম বা কোন পরীক্ষা অনলাইনে নেয়া যাবে না। তবে এসাইনমেন্ট অনলাইনে নেয়া যাবে। অনার্স ৪র্থ বর্ষের ক্লাস সম্পন্ন হওয়ার পর মাস্টার্স ১ম সেমিস্টারের ক্লাস শুরু করতে হবে।

ব্যবহারিক ক্লাসের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ক্যাম্পাসে ক্লাস শুরু হলে ৩ সপ্তাহ সময় দেয়া হবে, সেসময় ব্যবহারিক ক্লাস হবে। শিক্ষার্থীদের থিসিস জমা ও ইন্টার্ণশীপের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের চেয়ারম্যান একাডেমিক কমিটির মাধ্যমে
ব্যবস্থা নিবেন বলে জানানো হয়।

এসময় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, “বিশ্ব মহামারি ও পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যাতে সেশন জটের সম্মুখীন না হতে হয় সেদিক বিবেচনা করে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চালু করার উদ্যােগ গ্রহণ করা হচ্ছে।”

উপাচার্য আরো বলেন, “অনলাইন ক্লাসটা শুধু এ সময়র জন্য, মহামারী চলে গেলে আবার আমরা ক্যাম্পাস শিক্ষাকার্যক্রমে চলে যাবো। কারণ অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম কখনো ক্যাম্পাস শিক্ষার বিকল্প হতে পারে না।”

এই অনলাইন সভায় বিশ্ববিদ্যলয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ, অনুষদের ডিন, ইনিস্টিটিউটের পরিচালক, রেজিস্ট্রার, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, প্রক্টর, পরিচালক (গবেষণা/ছাত্র-কল্যাণ/অ ও হি/প ও উ/নেটওয়ার্কিং এন্ড আইটি ), পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক/গ্রন্থাগারিক অংশগ্রহণ করেন।