• 11 Aug
  • 09:27 PM
কক্সবাজার সৈকতে নিখোঁজ রুয়েট শিক্ষার্থীর খোঁজ মিলেছে

ভার্সিটিভয়েস ডেস্ক 11 Aug, 19




কোরবানির ঈদের ছুটিতে বেড়াতে এসে কক্সবাজার সৈকতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ মোঃ আরিফুল ইসলামের খোঁজ মিলেছে। আজ রবিবার বেলা ১১ঘটিকার দিকে কক্সবাজার সৈকতের অদূরে নজিরারটেক এলাকায় তাঁর মরদেহের খোঁজ মিলে।মৃত মোঃ আরিফুল ইসলাম রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইন্জিনিয়ারিং বিভাগে অধ্যয়নরত ছিলেন।এর আগে কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় হতে ২০১৫ সালে এসএসসি ও কক্সবাজার সরকারি কলেজ হতে ২০১৭ সালে এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন।

গতকাল শনিবার দুপুরে একসাথে আট বন্ধু সৈকতে গোসলে নামলে অসাবধানতাবশত চোরাবালিতে আটকা পড়ে পাঁচজন।এরমধ্যে তিনজনকে তৎক্ষনাৎ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।পরবর্তীতে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হলেও একজনের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।পরবর্তীতে আজ সকালে কক্সবাজারের নাজিরারটেকে তাঁর মরদেহ ভেসে উঠে।

মরদেহ উদ্ধারের কিছুসময়ের মধ্যে তাঁর নামাযে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইমামতি করেন প্রিপ্যার‍্যারটরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মাওলানা শফিক আহমদ আকবর। জানাজার আগে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, মরহুমের বড়ভাই রুয়েটের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইন্ঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতূর্থ বর্ষের ছাত্র তারেকুল ইসলাম, কক্সবাজার সরকারি কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ কাশেম, আরিফুল ইসলামের সহপাঠী রাইয়ান কাশেম বক্তৃতা করেন। বক্তারা লাইফ গার্ড, টুরিস্ট পুলিশ ও প্রশাসনের বিলম্বিত উদ্ধার কার্য নিয়ে চরম গাফিলতি ও উদাসীনতার বিষয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সবার মতে, লাইফ গার্ড সহ দায়িত্বশীলেরা সময়মতো এগিয়ে এলে আরিফুল ইসলাম ও রফিক মাহমুদকে হয়ত প্রাণে বাচাঁনো যেতো। এ বিষয়ে ফেসবুক পোস্টেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নিহতের স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবগণ।পরবর্তীতে এমন গাফেলতি যেন কারো প্রাণনাশের কারণ না হয় এ বিষয়ে তারা তাদের পোস্টে প্রশাসনের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করেন।