• 08 June
  • 12:13 PM
৬০ দিন যাবৎ সকল ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত সাভারের দুইটা প্রতিষ্ঠানে

শান্ত মালো,নিটার প্রতিনিধি 08 June, 19




ঢাকার প্রাণকেন্দ্র সাভারের প্রায় একই সময় ধরে দুইটা প্রতিষ্ঠানের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ চলছে। গন বিশ্ববিদ্যালয়(গবি) ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার)। প্রতিষ্ঠান দুইটি ভিন্ন কারনে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছিল শিক্ষার্থীরা।

গন বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ ভিসি পাওয়ার জন্য শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করে। টানা ৪ দিন যখন শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলন করেও কোনো ভালো ফলাফল পাওয়া যায় না। তখন তারা
উপাচার্যের দাবিতে আমরণ অনশনে বসেছিল সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের (গবি) ১৪ শিক্ষার্থী। অনশন কর্মসূচিতে বেশ কিছু ছাত্র-ছাত্রী অংশ নিয়েছিল। পরবর্তীতে রেজিস্ট্রার তাদের কে বৈধ ভিসি পাবে বলে আশা ব্যক্ত করেন। এরপরও তারা বৈধ ভিসি পায় নি, তাদের আন্দোলন আবার শুরু হয়। যার ফলে আজ ৬০ দিন ধরে সকল কার্যক্রম বন্ধ চলছে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের। ঈদের ছুটির পর ক্লাস-পরীক্ষা শুরু হবে কি না এটা নিয়েও দ্বিধায় ভুগছে সাধারণ শিক্ষার্থী।

অন্যদিকে, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর আন্দোলন শুরু হয়, পদার্থবিজ্ঞানের একজন শিক্ষকের স্বেচ্ছাচারিতার কারনে ৭ম ও ৮ম ব্যাচের ৪জন শিক্ষার্থী কে ফেল করানো হয়। তারা এর জন্য আন্দোলন শুরু করে, যেন তাদের ফল গুলো পূর্ণ বিবেচনা করা হয়। পরবর্তীতে প্রিন্সিপাল মহাদয় তাদের জানান, যেহেতু ফল ঘোষনা হয়ে গেছে আর এটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তৈরি হয়েছে তাই তাদের পক্ষে এ ব্যাপারে কিছু করার নেই বলে জানান। কিন্তু আন্দোলত শিক্ষার্থীরা এটা মেনে নিতে না রাজ। যার ফলশ্রুতিতে তারা কঠোর আন্দোলন চালিয়ে যায় টানা(৪ দফাসহ) সেই সাথে সকল ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত করেন। পরবর্তীতে প্রসাশন অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষনা করেন। আগামী ১২-০৬-২০১৯ এ ক্যাম্পাস খোলা এবং সকল ক্লাস-পরীক্ষা চালু হওয়ার নোটিশ দেন প্রসাশন। এর মাঝে অস্থিরতা বিরাজ করছে সাধারন শিক্ষার্থীদের মাঝে। ২ মাস যাবৎ ক্লাস না হওয়ায় তাদের সিলেবাস সম্পূর্ণ হয়নি। জুন মাসে সেমিষ্টার ফাইনাল হওয়ার কথা থাকলেও সেটা পিছিয়ে নেওয়া হয়েছে ফলস্বরূপ সেশনজট।