• 11 July
  • 01:51 PM
'রোবট ফোর্স' উদ্ভাবন করলেন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থী নোবেল

এস আহমেদ ফাহিম 11 July, 19

চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রনিক্স বিভাগের শিক্ষার্থী নোবেল বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো রোবট ফোর্স আবিষ্কার করেছেন।যা ইতিমধ্যে সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। এই আবিষ্কারের জন্য ভূয়সী প্রশংসাও পেয়েছেন তিনি।

আবিষ্কারের অল্পদিনেই পুরষ্কারের ঝুড়িতে যুক্ত হলো দেশসেরা হিসেবে একে একে বেশ কয়েকটি জাতীয় পুরষ্কার। এর মধ্যে ২০১৮ সালে তার উদ্ভাবিত ‘বাংলাদেশ রোবট ফোর্স’ প্রজেক্টটি স্কিল কম্পিটিশন-২০১৮ তে ইনস্টিটিউট পর্যায়ে প্রথম স্থান, স্কিল কম্পিটিশন-২০১৮ তে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পর্যায়ে প্রথম স্থান, ৫ম চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০১৮ তে প্রথম স্থান, গেল ১৬ জুন জাতীয় স্কিল কম্পিটিশন-২০১৮ তে তৃতীয় স্থান অর্জন করে জাতীয় পুরস্কার লাভ, ১৭ জুন জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০১৯ এ চট্টগ্রাম জেলা চ্যাম্পিয়ন এবং সর্বশেষ গেল ২৭ জুন ঢাকার জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে অনুষ্ঠিত ৪০তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০১৯ এ সিনিয়র ক্যাটাগরিতে দেশসেরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

তার প্রজেক্ট সহযোগী হিসেবে ছিলেন চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ইলেকট্রনিক্স বিভাগের অষ্টম পর্বের মেধাবী শিক্ষার্থী ক্ষুদে বিজ্ঞানী ফাহিম জাওয়াদ এবং ইমতিয়াজ বিন সোয়াইব।তাদের উদ্ভাবিত রোবট ফোর্সের মাধ্যমে অগ্নিনির্বাপণ, আগুন থেকে মানুষকে বাঁচানো এবং অগ্নিকাণ্ডের স্থানে দ্রুত প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পাঠাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এটির মাধ্যমে উদ্ধার অভিযান নিখুঁতভাবে ও দ্রুততার সঙ্গে শেষ করা যাবে। অগ্নিকাণ্ড থেকে মানুষদের বাঁচাতে বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিসের জন্য এটি উদ্ভাবন করা হয়েছে। এই রোবটটি রিমোট কন্ট্রোলারের সাহায্যে একজন ফায়ার ম্যান এক কিলোমিটারের দূরত্ব থেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। এছাড়াও অগ্নিকাণ্ডের স্থানে রোবটটি প্রয়োজনীয় খাবার, মেডিসিন ও মাস্ক নিয়েও যেতে পারে। রোবটটির বহন ক্ষমতা ১৮ কেজি। এটি বাংলাদেশের বাজারে আনতে মাত্র ১০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন হবে। এটি সম্পূর্ণ দেশীয় প্রকৌশলী এবং প্রযুক্তিতে তৈরি করা সম্ভব।