• 11 June
  • 10:21 PM
সিলেটের প্রতিবন্ধী সমির ইচ্ছাপূরণে বাধা আর্থিক সংকট

নিজস্ব প্রতিনিধি 11 June, 19

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী সমির রঞ্জন বিশ্বাস এক দরিদ্র পরিবারের সন্তান। সাত ভাই বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়। অভাব-অনটনের সংসার। পিতা সুবল বিশ্বাস দিনমজুরী করে পরিবারের খরচ যোগান। অন্যের জায়গায় ঘর বানিয়ে তারা বাস করছেন।

এত প্রতিবন্ধকতার পরেও থেমে নেই সমির। সে সিলেট জিডিএফ দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিশু বিদ্যালয় থেকে ৫ম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়ে সেই বিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে নগরীর রসময় মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছিল।

সেখান থেকে এসএসসি পাশও করেছে। তারপর ইউনিভার্স্যাল কলেজ সিলেট থেকে এইচ এস সি পাশ করে। সমির এখন সিলেট মদনমোহন কলেজের বিএ প্রথম বর্ষের ছাত্র।

কিন্তু মেধাবী দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী সমিরের লেখাপড়া চালিয়ে যেতে ফ্রেম টেইলার্স, অংকের বোর্ড, রেবাকাস প্রয়োজন যা কেনার সামর্থ্য তার নেই।

সোমবার এই প্রতিবেদককে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে সমির এসব তথ্য জানায়।

সমির আরো জানায় আমার বাড়ি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার জয়কলস গ্রামে। অতি দরিদ্র পরিবারের সন্তান। আমাদের বর্ধিত পরিবার তাই বাবার পক্ষে দিনমজুরের কাজ করে পরিবার চালানোটা অনেক খুবই কষ্টের। তার পক্ষে আমার লেখাপড়ার জন্য প্রয়োজনীয় ডিভাইস কিনে দেওয়া তার পক্ষে অসম্ভব। তাই সমাজের বিত্তবানদের কাছে আমার আকুল আবেদন, ডিভাইসগুলো কিনতে আমাকে সাহায্য করুন।

উপজেলা সমাজসেবা অফিসের ইউনিয়ন সমাজকর্মী এ এফ এম হেলালুজ্জামান বলেন, সমির নিয়মিত প্রতিবন্ধী ভাতা পায়।

তিনি বলেন, সমির দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হলেও ছাত্র হিসেবে মেধাবী। কিন্তু তাদের আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ।