• 08 May
  • 08:08 PM
এসএসসির ফলাফলে শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করলো ফজলুর

ভার্সিটি ভয়েস ডেস্ক 08 May, 19

ফজলুর রহমান। সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার ধুকুরিয়াবেড়া ইউনিয়নের চরগোপালপুর গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে। সে একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। জন্মগতভাবে তার দুই হাত ও একটি পা নেই। এক পা দিয়েই চলেন, সেই পা দিয়ে লেখেন। এক পায়ে বাড়ি থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে স্কুলে গিয়ে লেখাপড়া করেছেন তিনি। ফজলুর রহমান এ বছর মিটুয়ানী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৩.৫৬ পেয়ে পাস করেছেন। তাকে স্কুলে নিয়ে যেত তার ছোট বোন আসমা। সেও এবার এসএসসিতে জিপিএ-৩.০৬ পেয়ে পাস করেছে।

হতদরিদ্র পরিবারের এ দুই ভাই বোনের সাফল্যে গোটা গ্রামবাসী আনন্দে মেতেছে। ফজলুর প্রবল ইচ্ছা শক্তির কাছে দরিদ্রতা ও শারীরিক প্রতিবন্ধিতা আজ হার মেনেছে। তিনি পিইসিতে ২.১৭ ও জেএসসিতে ৩.৭৫ পেয়ে পাস করেন।

ফজলুর রহমান বলেন, প্রতিদিন অনেক কষ্ট করে এক পা দিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে ৩ কিলোমিটার রাস্তা পাড়ি দিয়ে স্কুলে গিয়েছি। আমার বই খাতা কলম আমার বোন আসমা নিয়ে গেছে। যে দিন আমার ছোট বোন স্কুলে যায়নি সেদিন আর কেউ আমার বই নেয়নি। ফলে সেদিন আর আমার স্কুলে যাওয়া হয়নি। আবার বৃষ্টি এলে সে দিনও স্কুলে যেতে পারিনি। সবার দোয়া ও সহযোগিতায় আমি এই রেজাল্ট করতে পেরে খুশি। তবে অর্থাভাবে এইচএসসিতে ভর্তি হতে পারবো কি-না তা এখনও জানি না।

ফজলুর রহমানের বাবা সাহেব আলী বলেন, আমি একজন হতদরিদ্র দিনমজুর। ক্ষেত খামারে কামলা দিয়ে যা পাই তা দিয়ে অভাব অনটনের সংসারই ভালোভাবে চলে না। তার ওপর প্রতিবন্ধী ছেলে ও মেয়ের ভরণপোষণ কষ্টসাধ্য। লেখাপড়ার খরচ জোগাব কীভাবে।