• 08 Nov
  • 05:50 PM
যেভাবে আব্রাহামের হাত ধরে "Bu Cyclist " এর যাত্রা শুরু

ববি প্রতিনিধি 08 Nov, 19

আব্রাহাম, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী। ছোটবেলা থেকে সাইকেলের প্রতি অন্যন্য টান রয়েছে। এক সময় স্কুল,কলেজে যাওয়া-আশার নিত্তদিনের সঙ্গী তো এই সাইকেলেই ছিল। বলাচলে সাইকেল এক সময় তাঁর ধ্যান-জ্ঞান ছিল। মাঝে মাঝেই সাইকেলের পিঠে চড়ে বেড়িয়ে পড়তেন অজানা কোন উদ্দ্যেশে। স্বপ্নদেখতেন সাইক্লিস্ট হওয়ার।

সময়ের ব্যবধানে বিশ্ববিদ্যালয়ে পা দিলে সাইক্লিস্ট হওয়ার সে স্বপ্ন অনেকটায় ধূসর হয়ে যায়। এরই মধ্যে পাড় করে ফেলেছেন বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রায় তিনটি বছর। কিন্তু মনের গহীনে যে স্বপ্ন বেঁধে রেখেছেন তা তো শেষ হবার নয়।


বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবনের শুরু থেকেই বরিশালের বিভিন্ন সাইক্লিস্ট গ্রুপ ও এসোসিয়েশন যোগাযোগ করেছেন, ইভেন্টে যোগ দিয়েছেন । কিন্তু তাদের মতো করে সেখানে নিজেকে খাপ -খাইয়ে নিতে পারছিলেন না।হতাশ হয়ে পড়েন আব্রাহাম। তবে কী তাঁর সাইক্লিস্ট হওয়ার স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল? সাম্প্রতি জাহাঙ্গীরনগর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জো-বাইক সিস্টেম চালু হলে কিছুটা আশার সঞ্চয় হয় তাঁর মনে। অধীর আগ্রহ নিয়ে তাদের পেজ ঘটাঘাটি করে জানতে পারেন দেশের মোটামুটি সকল বিশ্ববিদ্যালয়েই সাইক্লিস্ট গ্রুপ আছে। চিন্তা করলেন তাহলে তো আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়েও এমন সাইক্লিস্ট গ্রুপ রয়েছে। কিন্তু এবারো তিনি হতাশ হলেন, ,২০১১ সালে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হলেও এমন কোন সাইক্লিস্ট গ্রুপ নেই।


তখনই ভাবলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সাইক্লিস্ট গ্রুপ খুললে কেমন হয়? যেভাবনা সেই কাজ। দুই- তিনজন বন্ধুর সাথে কথা বলে খুলে ফেলেন " Bu Cyclist " নামে একটি গ্রুপ। ডাকদেন রাইডের একটি ইভেন্টের। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার।ইভেন্টে সাড়া দেন আরো পাঁচ সহযাত্রী, রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী ফয়সাল হোসেন,সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তানবীর রাফিদ,ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী তাহীর হোসেন, একই বিভাগের শিক্ষার্থী সানজিদা জাহান স্বপনীল এবং ইহাব ইসলাম।১ লা নভেম্বর নভেম্বর ভোরে ছয় সাইক্লিস্ট বেড়িয়ে পড়েন ৪০ কিলোমিটার দূরবর্তী পটুয়াখালি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যেশে। আসা-যাওয়া মিলিয়ে ৮০ কিলোমিটার ব্যাপী তাদের প্রথম ইভেন্ট সফল ভাবে সম্পন্ন করেন।


গ্রুপের একমাত্র নারী সদস্য সানজিদা জাহান স্বপ্ননীল বলেন," সাইকেল চালিয়ে পিএসটিইউ যাওয়া এক অন্যন্য অভিজ্ঞতা। এটা কখনোই কোনো ভাষায় প্রকাশ করা জাবে না।আজীবন স্মৃতি হয়ে থাকবে পহেলা নভেম্বর।প্রথমে শুকরিয়া আদায় করছি পরম করুনাময় আল্লাহর, যিনি সকল দুর্ঘটনার থেকে আমাদের রক্ষা করেছেন।তারপর ধন্যবাদ আব্রাহাম ভাইকে যিনি এই রাইড টার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তারপর তানভির ভাই, যিনি আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন।তারপর সকলে যারা আমাকে পুরো রাইডে সাহস দিয়েছেন। একটা সফল রাইড দিয়ে নতুন ইতিহাস এর সাক্ষ্যি হতে পেরে ভালো লেগেছে। "

তাঁরা এখন স্বপ্ন দেখছেন "Bu Cyclist " অন্যন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে। সাইকেল চালানোর প্রতি সবাইকে আগ্রহ করা,শারীরিক ভাবে ফিট থাকা, জ্যাম উপেক্ষা করে সময় মত গন্তব্য পোছানো,বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন দিবসে সাইকেল র‍্যালির আয়োজন করা, সাইকেল বিভিন্ন প্রতিযোগিতা আয়োজন করা ইত্যাদি লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে আব্রহামের "Bu Cyclist "গ্রুপটি।