• 08 Oct
  • 05:33 PM
আবরার হত্যার রাতে অমিত বাড়ি ছিলেনঃ আসিফ তালুকদার

হাসান বিশ্বাস 08 Oct, 19

আবরার হত্যাকান্ডে অমিত সাহা জড়িত ছিলেন না নিশ্চিত করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাহিত্য সম্পাদক আসিফ তালুকদার গণমাধ্যমকে বলেন, "অমিত সাহার রুমে ঘটনাটা ঘটলেও অমিত সাহা ঘটনার এক দিন পূর্বেই হল ত্যাগ করে বাড়ি চলে গিয়েছিলেন। ঘটনার রাতেও তিনি হলে ছিলেন না।"

আসিফ তালুকদার আরো বলেন, "আমরা চাই যারা এই জঘন্য অপরাধ করেছে তাদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হোক। তবে সেদিকেও নজর রাখতে হবে, আমাদের কোন ভুল তথ্যের জন্য যেন কোন নিরপরাধীর জীবন নষ্ট না হয়। আপনারা সিসিটিভি'র ফুটেজ দেখেছেন। সেখানে অমিত সাহাকে দেখা যায়নি। তবুও কোন ধরণের তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই সংবাদ মাধ্যমে অমিতের নামটি বারবার এসেছে। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।"

এদিকে ঘটনার পর প্রথম দিক থেকেই অমিতের নাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তবে এর কোন প্রতিবাদ করে বা নিজেকে নিরপরাধী দাবি করে অমিতকে কোন গণযোগাযোগ মাধ্যমে কিছু বলতে দেখা যায়নি।

অমিত সাহার নাম কেন প্রথম থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোনা গিয়েছিলো প্রশ্নের জবাবে আসিফ তালুকদার বলেন, "অমিত সাহার রুমে ঘটনাটি ঘটায় প্রথম থেকে তাকে সন্দেহ করা হয়েছে। এছাড়া তিনি সনাতন ধর্মাবলম্বী হওয়ার সন্দেহটা আরো বেশি ছিলো।"

বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাসেলের বিষয়ে আসিফ তালুকদার বলেন, "রাসেল টর্চারের সময় সেই রুমে ছিলোনা। তবুও যেহেতু রাসেলের হলে ঘটনাটি ঘটেছে এবং সেই রাতে রাসেল হলে অবস্থান করেছিলো, তাই আমরা মনে করি রাসেলের দায়িত্বহীনতার কারণেই এই ঘটনাটি ঘটেছে। একমাত্র এই কারণে আমরা রাসেলকে ছাত্রলীগ থেকে আজীবন বহিষ্কার করেছি। তবে এটা সত্য যে রাসেল এই অপ্রত্যাশিত ঘটনার সাথে সরাসরি যুক্ত ছিলেন না।"

আবরার হত্যায় অভিযুক্ত আশিকুল তার জবানবন্দিতে অমিত সাহার নাম উল্লেখ করে বলেন, আবরারকে রাত ৮ টার দিকে ২০১১ নাম্বার কক্ষে নিয়ে আসার পর জিজ্ঞাসাবাদ করেন বুয়েট ছাত্রলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বংশের শিক্ষার্থী মুজতবা রাফিদ, উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররস সকাল এবং উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা।"

তবে এ পর্যন্ত অমিত সাহার বিরূদ্ধে কোন তথ্য প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে আসিফ তালুকদার বলেন, "আমরা আরো তদন্ত করছি। যদি কারো বিরুদ্ধে কোন প্রমাণ পাই, তবে সাথে সাথে তাদেরকেও ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করবো।"